রুশ প্রজাতন্ত্রের নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন বৃহস্পতিবারে আগামী মন্ত্রীসভা গঠনের প্রশ্নাবলী নিয়ে পরামর্শ শুরু করেছেন. এই বিষয়ে তিনি বর্তমানের রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভের সঙ্গে সাক্ষাত্কারের সময়ে ঘোষণা করেছেন. সোচী শহরের ক্রাসনায়া পলিয়ানা নামক রাষ্ট্রপতির বাসভবনে এই সাক্ষাত্কার সম্পন্ন হয়েছে.

দিমিত্রি মেদভেদেভ ভ্লাদিমির পুতিনকে দেশের রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হওয়ার জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন. মনে করিয়ে দিই যে, এর আগেই রাষ্ট্রীয় নির্বাচন পরিষদ ৪ই মার্চের ভোট গণনার চূড়ান্ত ফল ঘোষণা করেছে ও রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি পদের জন্য ভ্লাদিমির পুতিন নির্বাচিত বলে ঘোষণা করেছে. তিনি পেয়েছেন ৬৩, ৬ শতাংশ ভোট. বর্তমানের রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ এই ফল নিয়ে মূল্যায়ণ করে বলেছেন:

“ফল একেবারেই প্রমাণ যোগ্য হয়েছে. তা দেখিয়ে দিয়েছে যে, আমাদের দেশের জনগন সেই পথকেই সমর্থন করেন, যা বর্তমানের সরকার বিগত সময়ে নিয়েছে. বিগত সময়ে আমরা সত্যই একসাথে নতুন অর্থনীতির ভিত্তি তৈরী করতে পেরেছি, তা আধুনিক করেছি, প্রযুক্তিগত বিন্যাসের পরিবর্তন করেছি. খুবই গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা আমাদের রাষ্ট্রের সামনে ছিল ও রয়েছে – নিরাপত্তা বজায় রাখা, প্রতিরক্ষায় সমর্থ হওয়া আর, অবশ্যই, অন্যান্য দেশের সঙ্গে উপযুক্ত স্তরে পারস্পরিক বোঝাপড়া বজায় রাখা”.

ভ্লাদিমির পুতিন দিমিত্রি মেদভেদেভকে অভিনন্দনের জন্য ধন্যবাদ জ্ঞাপণ করেছেন, তিনি এই সমস্ত লক্ষ্য ও সমস্যার সঙ্গে একমত হয়েছেন, পরবর্তী কালেও তাঁর সঙ্গেই একজোটে কাজ করার ইচ্ছাকে সমর্থন করে বলেছেন:

“অর্থনীতির ক্ষেত্রে আমাদের জন্য প্রধান কাজ হল – এমনকি সঙ্কটের ঘটনা গুলি স্বত্ত্বেও ম্যাক্রোইকনমিক সূচক গুলিকে, আমাদের প্রবণতাকে, যা আমরা বিগত বছর গুলিতে অর্জন করেছি, তা  বজায় রাখা. আমি আপনার সাথে একত্রে সামাজিক কর্মসূচীর তালিকা তৈরী করেছি, আর সেই গুলি বাস্তবায়িত হতে পারে, শুধু মাত্র দেশের অর্থনৈতিক উন্নতির হারকে বজায় রাখতে পারলে. আমরা বাস্তবে এই কাজ সেই অর্থে শুরু করে ফেলেছি, যে কি আমরা কিভাবে করব, একসাথেই করব, যে নিয়ে আমরা আগেই সমঝোতা করেছি. আজ আমরা আগামী মন্ত্রীসভার গঠন সংক্রান্ত প্রশ্ন নিয়ে পরামর্শ শুরু করব”.

       মন্ত্রীসভার সম্ভাব্য পরিবর্তন নিয়ে নির্বাচিত রাষ্ট্রপতি ভ্লাদিমির পুতিন ও বর্তমানের রাষ্ট্রপতি দিমিত্রি মেদভেদেভ যে আলোচনা এখনই শুরু করেছেন, তা নিয়ে কোন তাড়াহুড়ো করার দরকার নেই. নব নির্বাচিত রাষ্ট্রপতির আনুষ্ঠানিক অভিষেক হবে ৭ই মে. এর আগের মন্ত্রীসভা ৭ই মে পর্যন্ত নিজেদের মেয়াদ অনুযায়ী কাজ করবে, আর নতুন মন্ত্রীসভা সম্পূর্ণ শক্তিতে কাজ করতে শুরু করবে শুধুমাত্র গ্রীষ্মকালের কাছাকাছি. আর নতুন রাষ্ট্রপতি ও নতুন প্রধানমন্ত্রীর (আর দিমিত্রি মেদভেদেভ, খুবই সম্ভবতঃ, তাই হবেন) মধ্যে আগামী মন্ত্রীসভার গঠন নিয়ে পরামর্শ সেই ইচ্ছার সঙ্গেই জড়িত, যাতে প্রশাসনের কোন রকমের কাজে ব্যাঘাত এড়ানো সম্ভব হয়, যা মন্ত্রীসভার বদলের ক্ষেত্রে ঘটতেই পারে.