রাশিয়ায় সাধারন শিক্ষায়তনে নতুন ব্যবস্থার প্রবর্তণ করা প্রয়োজন. এই লক্ষ্যে মুল বিষয় হতে হবে ছাত্র ও শিক্ষকের নিজস্বতা, বৈশিষ্ট্য বিবেচনা করা. এটা হতে হবে এমন শিক্ষায়তন, যেখানে ছাত্রদের ভর্তি করার জন্য পরীক্ষা নেওয়া নিয়ে ব্যস্ত থাকা নয়, পাঠ্যসূচী ও পড়াবার পদ্ধতি নিরূপন করা নিয়ে কাজ করা হবে, যার সাহায্যে প্রতিটি শিশুর কাছাকাছি পৌঁছানো যায়.

      মস্কোর শহরতলীতে অদিন্তসোভা শহরে স্কোলকোভা স্কুল নামক প্রকল্পে যোগদানকারীদের সম্মেলন হয়ে গেল. ঐ সম্মেলনে শুধুমাত্র সারা রাশিয়া থেকে শিক্ষকেরাই আসেননি, যারা তাদের প্রকল্প জমা দিয়েছেন, এসেছিলেন শিক্ষার ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা এবং শাসক কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা. রাশিয়ায় স্কুলশিক্ষা বিকাশ দলের প্রধান ইসাক ফ্রুমিন জানিয়েছেন, যে শুরুতে স্কোলকোভা তহবিল শুধুমাত্র বিজয়ী প্রকল্পটিকেই বেছে নিতে চেয়েছিল বাস্তবায়িত করার জন্যে. কিন্তু শেষমেষ  প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়া ১২টি প্রকল্প নিয়েই কাজ শুরু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে. শুধুমাত্র এইভাবেই সারা দেশজুড়ে শিক্ষার ক্ষেত্রে স্কোলকোভা প্রকল্প রূপায়ণের কাজ শুরু হবে - দেশের সর্বত্র নতুন প্রজন্মের অদ্বিতীয় স্কুলের নেটওয়ার্ক খোলা. ইতিমধ্যেই বিশেষ বিশেষ শর্তের তালিকা বানানো হয়েছে, স্কুল খুলতে চাইলে যা পূরণ করা আবশ্যকীয়. এইসব শর্ত যেমন স্থান, পঠনপাঠন প্রক্রিয়া নিয়ে, তেমনই নতুন শিক্ষাদান রীতির প্রবর্তণ – স্বাধীন ও তত্পর, বলেছেন ইসাক ফ্রুমিন.  ----

      আমরা বুঝি, যে আজকের দিনে খুব বেশি হলে সাধারন স্কুলে শিক্ষাদান ধারা বাস্তব অর্থনীতি ভিত্তিক. আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার প্রজেক্টরের মতো যন্ত্রপাতি বা কম্পিউটারের ক্লাসেই সীমাবদ্ধ. প্রতিযোগিতায় য়োগদানকারী স্কুলের কর্তৃপক্ষেরা বোঝে, যে তাদের কর্তব্য হল প্রযুক্তিগতভাবে স্কুলকে আরো সজীব করে তোলা – এটা অবিরত বিকাশশীল স্কুল, এমন স্কুল নয়, যে একবার পাঠ্যসূচী গ্রহণ করে, তাই দিয়েই কাজ চালাতে থাকে. এটা হবে এমন স্কুল, যার  ভবিষ্যতের বিকাশ সম্পর্কে সঠিক ধারনা ও কমসূচী থাকবে

       সম্মেলনের শেষে আলোচনা সভায় যোগ দেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সহকারী আর্কাদি দ্ভরকোভিচ. তিনি মন্তব্য করেন, যে শিক্ষার প্রশ্নের নিষ্পত্তি এক-দুদিনে করা যায় না. এটা একটা জটিল ব্যবস্থা, এর বিকাশের ও পরিবর্তনের নিজস্ব পর্যায় আছে, যা দশক দশক ধরে চলতে থাকে. এই প্রসঙ্গে স্কোলকোভা প্রকল্পের আবির্ভাবের অর্থ হল এই, যে পরিবর্তন শুরু হয়ে গেছে.  ----

       স্কুলের শিক্ষা কেবলমাত্র পাঠ্যসূচী, পঠনপাঠনের পদ্ধতি, যন্ত্রপাতিতেই সীমাবদ্ধ নয়, আরও আছে প্রতিটি শিক্ষকের, প্রতিটি স্কুলের নিজস্ব বৈশিষ্ট্য. কারণ প্রতিটি স্কুলের, প্রতিটি ছাত্রের, ছাত্রদের প্রতিটি প্রজন্মের, বাস্তব জীবনের আছে নিজস্ব স্বকীয়তা, যা স্কুলের চারপাশে, পরিবার থেকে শুরু করে গোটা সমাজব্যবস্থা পর্যন্ত. আমার দৃঢ়বিশ্বাস, যে ছাত্ররা যাতে তাদের স্বকীয়তা প্রয়োগ করতে পারে, সেজন্য যত বেশি সম্ভব তাদের সুযোগ দেওয়া উচিত.

       স্কোলকোভা প্রকল্পের সাফল্যলাভের সম্ভাবনা শুধু এই কারণে নয়, যে সরকারের সমর্থন আছে এবং শিক্ষকেরা এই ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করছে. এটাও গুরুত্বপূর্ণ, যে এর মুখ্য পৃষ্ঠপোষক হল মাইক্রোসফট কোম্পানী, যারা ইতিমধ্যেই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের জন্য বৃটেন সফর করতে সাহায্য করেছে, যেখানে তারা স্থানীয় উদ্ভাবনমুলক স্কুলগুলির কাজকর্ম পরিদর্শন করতে পেরেছেন. ভবিষ্যতে মাইক্রোসফট বিজয়ী স্কুলগুলিকে প্রযুক্তিগত সাহায্য দেবে.