ইয়েমেনের কিছু বাসিন্দা মার্কিনী রাষ্ট্রদূতকে দেশ থেকে তাড়ানোর দাবি করছে, কারণ তিনি, তাদের মতে, দেশের আভ্যন্তরীন ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করছেন, বুধবার জানিয়েছে ইরানী টেলি-চ্যানেল “প্রেস-টিভি”. মিছিলকারীরা প্রতিবাদ আন্দোলন আয়োজন করে সানায় মার্কিন দূতাবাসের কাছে, এবং এ সময়ে রাষ্ট্রদূত জেরাল্ড ফিশারের পুত্তলিকা এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রীয় পতাকা পোড়ায়. এ আন্দোলনে কত জন মিছিলকারী অংশগ্রহণ করেছিল, সে সম্বন্ধে খবরে জানানো হয় নি. প্রতিবাদকারীরা ফিশারের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলছে সাম্প্রতিক রাষ্ট্রপতি নির্বাচন আয়োজনে, যাতে একমাত্র প্রার্থী ছিলেন আব্দ রাব্বো মানসুর হাদি, এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি আলি আব্দাল্লা সালেহ-র দেশে ফিরে আসার ব্যাপারেঅংশগ্রহণ করার. টেলি-চ্যানেল উল্লেখ করছে যে, মার্কিনী রাষ্ট্রদূত হাদি ও সালেহ-র সাথে সাক্ষাত্ করেন তাঁদের দ্বারা ক্ষমতা হস্তান্তরের চুক্তি স্বাক্ষরের প্রাক্কালে. বহু ইয়েমেনবাসী মনে করে যে, রাষ্ট্রপতির পদ থেকে সরে যাওয়া সত্ত্বেও সালেহ, বাস্তবিকপক্ষে, ইয়েমেনে শাসনের উচ্চ পর্যায়ে নিজের প্রভাব বজায় রেখেছেন.