0রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন চীনা অর্থনীতির বৃদ্ধিকে রাশিয়ার জন্য বিপদ বলে মনে করেন না. এ সম্বন্ধে তিনি লিখেছেন "রাশিয়া ও পরিবর্তনশীল জগত্" নামে প্রাক-নির্বাচনী প্রবন্ধে, যা সোমবার প্রকাশিত হয়েছে “মস্কোভস্কিয়ে নোভস্তি” পত্রিকায়. তাঁর স্থিরবিশ্বাস যে, রাশিয়ার আরও সক্রিয়ভাবে নতুন সমবায়ী সম্পর্ক গড়ে তোলা উচিত সাইবেরিয়া ও দূরপ্রাচ্যের অর্থনৈতিক বিকাশে চীনের ক্ষমতা ব্যবহার করে. প্রধানমন্ত্রী মনে করেন যে, বিশ্ব ক্ষেত্রে নিজের ব্যবহারে চীন প্রাধান্য অর্জনে তার দাবি সম্পর্কে বলার অজুহাত দিচ্ছে না. বেজিং সমানাধিকারী বিশ্ব-প্রথা গঠনে রাশিয়ার দৃষ্টিভঙ্গীর অংশভাগী. পুতিনের কথায়, দু দেশ আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে পরস্পরকে সমর্থন করে যাবে, মিলিতভাবে মীমাংসা করবে তীব্র আঞ্চলিক ও বিশ্বব্যাপী সমস্যাবলি, পারস্পরিক ক্রিয়াকলাপ বাড়াবে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে, “ব্রিক্স” সংস্থায়, শাংহাই সহযোগিতা সংস্থায়, “জি-২০” বিন্যাসে এবং অন্যান্য বহুপাক্ষিক বিন্যাসে. তাছাড়া, তাঁর কথায় রাশিয়া ও চীনের মাঝে সমস্ত বড় বড় রাজনৈতিক প্রশ্ন মীমাংসিত, সেই সঙ্গে প্রধান প্রশ্ন – সীমান্ত প্রশ্নও. তবুও, এ সবের অর্থ এ নয় যে, রাশিয়া ও চীনের মাঝে কোনো মতভেদ নেই, উল্লেখ করেছেন প্রধানমন্ত্রী.