সিরিয়ার বন্ধু’যা হচ্ছে বিতর্কিত একটি শব্দ। সত্যিকার অর্থে,এরা সিরিয়ার বিরোধীপক্ষ যারা শান্তিপূর্ণভাবে সিরিয়ার সংকট সমাধান হোক তা চান না,উপরন্তু গৃহযুদ্ধ শুরু করার প্ররোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন।এমনটি বলছিলেন রাশিয়ার দুমার আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির প্রধান আলেক্সেই পুশকোভ। ‘সিরিয়ার বন্ধু’শীর্ষক আন্তর্জাতিক একটি সম্মেলন তিউনেশিয়ায় গতকাল শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। ‘সিরিয়ার বন্ধু’অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন দেশ ও সংগঠনের প্রতিনিধিরা একপক্ষ হয়ে সিরিয়ায় হতাহত বন্ধের দাবী জানিয়েছেন। সিরিয়ার বিরোধীদল ইতোমধ্যে ‘সিরিয়ার বন্ধু’ এর কাছে অস্ত্র সরবরাহের দাবী করেছে যারা বর্তমানে সিরিয়া জনগনের আর্মি নামে পরিচিত।

সংকট সমাধানে এ ধরনের কার্যক্রম হতে দেয়া যায় না। দুমার আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির প্রধান আলেক্সেই পুশকোভ ‘সিরিয়ার বন্ধু’এর উদ্যোগকে বৃহত সংরক্ষণ বলে আখ্যা দিয়েছেন। তিনি বলেন,‘আমি উল্লেখ করতে চাই,বন্ধু শব্দটি এখানে কমা দিয়ে আবদ্ধ করেছি। কারণ হিসেবে বলতে চাই,এই শব্দটি যথেষ্ট বিতর্ক সৃষ্টি করেছে এবং কার্যকরী কোন ভূমিকা রাখছে না। এই বন্ধুরা হচ্ছেন সিরিয়ার অস্ত্রধারী বিরোধীদল। সিরিয়ার ভবিষ্যত সম্পর্কের নিয়ে বলতে গেলে এ সম্মেলনকে আমি সিরিয়ার বিরোধী পক্ষের সম্মেলন বলব। এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন,রাশিয়াসহ প্রতিটি রাষ্ট্রই অনেক বেশী প্রভাব রাখছে।আমদের সাথে ন্যাটোভুক্ত শীর্ষ দেশগুলোর রাজনৈতিক ইউনিয়ন ও আরব লিগের ধনী দেশগুলোর সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে’।

আলেক্সেই পুশকোভ উল্লেখ করেছেন,সিরিয়ার বিরোধীদল এখন বিভক্ত হয়ে পড়েছে। সিরিয়ার জাতীয় পরিষদকে শুধুমাত্র ‘সিরিয়দের আইনগত প্রতিনিধি’হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া নয় বরং তাদের বিরোধীদল হিসেবেও গন্য করা যায় না। আলেক্সেই পুশকোভ বলেন,‘সিরিয়ার অভ্যন্তরীণ বিরোধীদলের মতে,পশ্চিমাদের সমর্থন পাওয়া সিরিয়ার জাতীয় পরিষদের কোন প্রকারের সমর্থনই নেই। সঙ্গত কারণেই প্রশ্ন দাড়ায়,অভিবাসীদের একটি সংগঠন যাদের সিরিয়ায় কোন কার্যক্রম নেই,তাদেরকে কেন ‘সিরিয়দের আইনগত প্রতিনিধির'স্বীকৃতি দেয়া হল। বস্তুত:সিরিয়ার জাতীয় পরিষদ সিরিয়ার সংকটকে আরও ঘনীভূত করতে অস্ত্রের ব্যবহার করছে এবং দামাস্কাসের অন্য দুটি দলের সাথে যোগ হয়ে কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে। তারা বলছেন,লিবিয়ার মত চিত্র হোক তা তারা চান না। এদের কেউ কেউ আবার সংঘর্ষ বন্ধ ও আসাদের পদত্যাগ দাবী করছেন। তবে সবাই না হলেও মুক্তি ফ্রন্ট মনে করছে,আসাদকে বাদ দিয়ে সিরিয়ার ভবিষ্যত নিয়ে বহুপক্ষের আলোচনা অপূর্ণই থেকে যাবে’।

আলেক্সেই পুশকোভ বলছেন,আসাদের ক্ষমতা এখনও শেষ হয়ে যায় নি এবং তার পদত্যাগের আলোচনার কথা ভিত্তিহীন। আগ্রহীরা সিরিয়ার সংকটকে নতুন পর্যায়ে নিয়ে যাওযার চেষ্টা করছে যা দেশকে গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছে।

সিরিয়ার জাতীয় পরিষদের সর্বশেষ কর্যক্রম হলঃবিরেধীদলের আর্মি নামধারী জঙ্গিদেরকে অস্ত্র সরবরাহ করার আবেদন।এ থেকে বোঝাই যাচ্ছে,এই শক্তি শান্তিপূর্ণ কাজে ব্যবহার হবে না। এদিকে দেশের বৃহত একটি অংশ মনে করছেন,আসাদের শাসনের অবসান হলে দেশে ধর্মীয় সংঘাত ও গৃহযু্দ্ধ শুরু হবে। যখনই বিরোধীদলের সাথে জঙ্গীদল যোগ দিয়েছে তখন থেকেই সিরিয়ায় বিভিন্ন হামলার ঘটনা ঘটছে। এর আগেই সিরিয়ায় কখনই এমনটি ছিল না। পরিশেষে এমন কথাই বললেন রাশিয়ার দুমার আন্তর্জাতিক বিষয়ক কমিটির প্রধান আলেক্সেই পুশকোভ।