রাশিয়ার নৌবাহিনী সোমালির উপকূলের কাছে জল-এলাকায় জলদস্যুদের বিরুদ্ধে সংগ্রামের আন্তর্জাতিক অভিযানে অংশগ্রহণ করে যাচ্ছে, কিন্তু মস্কো স্থল-এলাকায় জলদস্যুদের ঘাঁটির উপর আঘাত হানতে চায় না. রাশিয়ার ইতার-তাস সংবাদ এজেন্সি জানিয়েছে যে, এ সম্বন্ধে বলেছেন আফ্রিকার দেশগুলির সাথে সহযোগিতা সংক্রান্ত রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির বিশেষ প্রতিনিধি মিখাইল মার্গেলোভ. তিনি বৃহস্পতিবার লন্ডনে সোমালি সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে অংশগ্রহণ করেন. আগামী সপ্তাহের গোড়ায় ইউরোপীয় সঙ্ঘ সোমালির উপকূলের কাছে আন্তর্জাতিক জাহাজ চলাচল রক্ষার “আটালান্টা” নামে নৌবাহিনীর অভিযান ২০১৪ সাল পর্যন্ত বাড়াতে চায়. ইউরোসঙ্ঘ তাছাড়া সোমালির জলদস্যুদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে অংশগ্রহণ করা নিজের বাহিনীর ম্যান্ডেট আরও প্রসার করতে চায়, এবং জাহাজগুলিকে জলদস্যুদের স্থল-ঘাঁটির উপর গোলা বর্ষণের অনুমতি দিতে চায়. মার্গেলোভের কথায়. রাশিয়া সোমালির জলদস্যুদের বিরুদ্ধে অভিযানে অংশগ্রহণ করা নিজের জাহাজগুলির কর্তব্য এমনভাবে বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে না. তিনি মনে করেন যে, শুধু বলপ্রয়োগমূলক ক্রিয়াকলাপের দ্বারা সোমালির জলদস্যুতার সমস্যা মীমাংসা করা যায় না এবং তাদের বিরুদ্ধে জয়ের জন্য সোমালিকে অর্থনীতি ও রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলির পুনর্স্থাপনে সাহায্য করা প্রয়োজন. মার্গেলোভ বলেন, “আমি উগান্ডার রাষ্ট্রপতি ইওভেরি মুসেভেনির সাথে একমত, যিনি এক সপ্তাহ আগে আমার সাথে ব্যক্তিগত আলাপে বলেন: সমুদ্রে জলদস্যুদের বিরুদ্ধে বিজয়ের জন্য সোমালির স্থলভাগে তরুণ প্রজন্মকে জয় করা প্রয়োজন”.