পেন্টাগন প্রদত্ত তথ্য অনুযায়ী, সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্রের গবেষনাগার ও ভান্ডারগুলি পাহারা দেওয়ার জন্য প্রায় ৭৫ হাজার সামরিক কর্মচারীর প্রয়োজন হবে. মার্কিনী প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিরা এই খবর দিয়েছে. তাদের কথায়, যদি রাষ্ট্রপতি বারাক আবামা দাবী করেন, তাই পেন্টাগন বিভিন্ন সম্ভাব্য কার্যকলাপ বিবেচনা করে দেখছে. মার্কিনী সেনাবাহিনীর সদর দপ্তরে প্রযোজিত বিশ্লেষণ অনুসারে, সিরিয়ায় বিশৃঙ্খলা ও সশস্ত্র সংঘর্ষ শুরু হলে রাসায়নিক অস্ত্রশস্ত্রের ভান্ডারগুলি পাহারা দেওয়া অত্যন্ত কষ্টসাধ্য হবে. আমেরিকার গুপ্তচর বিভাগ সিরিয়ায় অন্ততঃ ৫০টি রাসায়নিক অস্ত্রের গবেষণাগার ও ভান্ডারের খোঁজ পেয়েছে, যেখানে বিষাক্ত সামরিক পদার্থ উত্পাদন ও মজুত করা সম্ভব.

       পেন্টাগনের উচ্চপদস্থ কর্মীদের মতে, সামরিক অভিযান থেকে বিরত থেকে, বরং বাশার আল-আসাদের উপর রাজনৈতিক, কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক উপায়ে চাপ জোরদার করা দরকার.