২৩শে ফেব্রুয়ারী পিতৃ ভূমির প্রতিরক্ষা কর্মী দিবসে মস্কো শহরে একই সঙ্গে চারটি রাজনৈতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল. প্রধানমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি পদ প্রার্থী ভ্লাদিমির পুতিনের পক্ষের লোকেরা ফ্রুনজেনস্কায়া পার দিয়ে মিছিল করে গিয়ে “লুঝনিকি” ষ্টেডিয়ামে সমাবেশ করেছেন. “কমলা বিপ্লব বিরোধী” লোকেরা “সময়ের সারার্থ” নামের আন্দোলনের সাথে একত্রিত হয়ে তাঁদের নেতা সের্গেই কুরগিনিয়ান এর সঙ্গে সমাবেশ করেছেন রাশিয়ার জাতীয় উন্নতি প্রদর্শনী চত্বরে. কমিউনিস্ট পার্টির লোকেরা থিয়েটার স্কোয়ারে সমাবেশে জড়ো হয়েছিলেন আর লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির লোকেরা পুশকিন স্কোয়ারে জড়ো হয়েছিলেন. সব মিলিয়ে এই দিনে রাস্তার চারটি অনুষ্ঠানে প্রায় এক লক্ষ চল্লিশ হাজার মানুষেরও বেশী অংশ নিয়েছেন. মস্কো বাসী ও শহরের অতিথিদের নিরাপত্তা রক্ষার কাজে প্রায় ১০ হাজার পুলিশ ও আভ্যন্তরীণ শৃঙ্খলা রক্ষী বাহিনীর সামরিক কর্মী ও স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা হয়েছিল, এই খবর জানানো হয়েছে শহরের পুলিশ বাহিনীর তথ্য প্রচার দপ্তর থেকে.

রাশিয়াতে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আর দেড় সপ্তাহ মাত্র বাকী রয়েছে, আর রাষ্ট্রপতি পদ প্রার্থীরা এই ধরনের সমাবেশকে নিজেদের প্রচারের জন্য সবচেয়ে বেশী করেই ব্যবহার করেছেন.

এক লক্ষ তিরিশ হাজারেরও বেশী লোক মিছিল করে এসে লুঝনিকি ষ্টেডিয়ামে জমা হয়েছিলেন. ভ্লাদিমির পুতিন নিজে ব্যক্তিগত ভাবে এই সমাবেশে অংশ নিয়ে সমবেত জনতাকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন:

“এটা খুবই প্রতীকী ব্যাপার যে, আমরা আজ ২৩শে ফেব্রুয়ারী পিতৃ ভূমি রক্ষী দিবসে সমবেত হয়েছি. কারণ আমরাই আজকের দিনে আমাদের দেশের রক্ষা কর্তা. আজ আমরা এখানে এই কারণেই এসেছি, যাতে বলতে পারি যে, “আমরা রাশিয়াকে ভালবাসি”. আর আমাদের মত মানসিকতার মানুষ রাশিয়াতে কয়েক হাজার নয় বরং কয়েক কোটি. আর আমরা সবাই মিলে তৈরী আছি আমাদের দেশের ভালোর জন্য কাজ করতে. শুধু কাজ করতেই নয়, প্রয়োজনে রক্ষা করতেও”.

 ভ্লাদিমির পুতিন আগের মতই এবারে সামরিক বাহিনীর সঙ্গে সাক্ষাত্কারের সময়ে নিজের ধারণাকে পুনরাবৃত্তি করেছেন যে, তিনি বিদেশী শক্তির পক্ষ থেকে দেশের আভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক বিষয়ে হস্তক্ষেপ হতে দেবেন না. তিনি তাই বলেছেন:

    “আমরা এটা হতে দেবো না যে, কেউ আমাদের বিষয়ে নাক গলানোর চেষ্টা করুক, আমরা এটাও হতে দেবো না যে, কেউ আমাদের উপরে তাদের ইচ্ছা জোর করে চাপিয়ে দিক. কারণ আমাদের আপনাদের সঙ্গে একসাথে নিজেদের ইচ্ছা অনিচ্ছা রয়েছে, য়া আমাদের সব সময়েই সাহায্য করেছে. আমরা আপনাদের সাথে এক বিজয়ী জাতি, এটা আমাদের জিনের মধ্যেই আছে, আমাদের জিন সংক্রান্ত কোডে রয়েছে. এটা এক প্রজন্ম থেকে অন্য প্রজন্মে প্রসারিত হয়েছে. আমরা এবারেও জিতবো. আমাদের প্রয়োজন হবে জয়ের ও অনেক সমস্যা সমাধানের, যা আমাদের এমনিতেই রয়েছে, সব জায়গারই মতো. এটা অন্যায়, ঘুষ চাওয়া, সরকারি কর্মীদের অভব্য আচরণ, দারিদ্র ও অসাম্য. কিন্তু আমি স্বপ্ন দেখি যে, আমাদের প্রত্যেক মানুষ যেন – সেই যেই হোন বড় কর্ম কর্তা থেকে সাধারন লোক – সকলেই যেন সততা ও বিবেকের সহমতে বাঁচতে পারেন. আর এটাই আমাদের বেশী করে শক্তিশালী করে তুলবে”.

    অন্য সব সমাবেশ বাকী প্রার্থীদের জন্য এত বেশী জন বহুল ভাবে হয় নি. রাশিয়ার লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির নেতা ভ্লাদিমির ঝিরিনোভস্কি, যিনি নিজেও একজন রাষ্ট্রপতি পদ প্রার্থী, পুশকিন স্কোয়ারে মাত্র দেড় হাজার লোক জড়ো করতে সক্ষম হয়েছেন.

    কমিউনিস্ট পার্টির গেন্নাদি জ্যুগানোভের সমর্থকরা ক্রেমলিনের থেকে সামান্য দূরেই থিয়েটার স্কোয়ারে জড়ো হয়েছিলেন, বলশয় থিয়েটারের কাছে. সেখানে পুলিশের মূল্যায়ন অনুযায়ী প্রায় দুই হাজার লোক জমা হয়েছিলেন. আরও একটি সমাবেশে রুশ দেশের “কমলা বিপ্লব বিরোধী” লোকেরা “সময়ের সারার্থ” নামের আন্দোলনের সাথে একত্রিত হয়ে তাঁদের নেতা সের্গেই কুরগিনিয়ান এর সঙ্গে সমাবেশ করেছেন রাশিয়ার জাতীয় উন্নতি প্রদর্শনী চত্বরে. তাঁরা রাশিয়াতে বাইরে থেকে গণতন্ত্রের আমদানী করার বিরুদ্ধেই ছিলেন.