কাজান শহরে – ২০১৩ সালের বিশ্ব ছাত্র অলিম্পিক প্রতিযোগিতা বা ইউনিভার্সিয়াডের রাজধানীতে আন্তর্জাতিক ছাত্র ক্রীড়া সংগঠনের প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খোলা হয়েছে. আগামী কিছু সময়ের মধ্যেই এর ভিত্তিতে আন্তর্জাতিক যুব ক্রীড়া সাংবাদিকদের বাছাই শুরু করা হবে. একই সঙ্গে এখানে সাতাশ তম গ্রীষ্ম ইউনিভার্সিয়াডের জন্য স্বেচ্ছাসেবক বেছে নেওয়ার কাজ করা হবে.

    এই প্রকল্পের কাজ শুরু হয়েছিল কাজান শহরে প্রায় দুই বছর আগে, এই কথা উল্লেখ করে আন্তর্জাতিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের প্রধান লিলিয়া বারিয়েভা বলেছেন:

    “২০১০ সালে রাশিয়া – খেলাধূলার মহান দেশ নামের সম্মেলনের সময়ে মস্কো সময়ে এই কেন্দ্র খোলার বিষয়ে ইচ্ছাপত্রে স্বাক্ষর করা হয়েছিল. এখন ইউনিভার্সিয়াডের স্বেচ্ছাসেবকদের জন্য তৈরী প্রশিক্ষণ পরিকল্পনার শেষ পর্যায়ে ঘষা মাজা করা চলছে. আমরা এমন কোর্স তৈরী করছি যা হেমন্ত কালে শুরু করা হবে, বড় মাপের আন্তর্জাতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার স্বেচ্ছাসেবক প্রোগ্রামের ম্যানেজারদের জন্য, তার মধ্যে ইউনিভার্সিয়াডের জন্যও প্রশিক্ষণে ব্যবস্থা থাকছে”.

    এখন নিউ মিডিয়া স্কুলের কোর্স তৈরীর কাজ শেষ হচ্ছে, যেখানে যুব ক্রীড়া সাংবাদিকরা প্রশিক্ষণ নেবে. এখানেই ছাত্র ক্রীড়া প্রতিযোগিতা আয়োজক বিশেষজ্ঞ তৈরী করা হবে. লিলিয়া বারিয়েভা আরও যোগ করেছেন:

    “আমরা ক্রীড়া নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে প্রশিক্ষণ দেবো, মার্কেটিং, এইচ আর ম্যানেজমেন্ট, অবশ্যই, বিশেষ মনোযোগ দেওয়া হবে সেই সমস্ত প্রতিযোগিতার উপরে, আর থাকবে ক্রীড়া সাংবাদিকতা, তথ্য প্রযুক্তি. পরবর্তী কালে পরিকল্পনা রয়েছে স্পোর্টস ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে, মেডিসিন, অ্যান্টি ডোপিং ইত্যাদি বিষয়ে পড়ানোর. রাশিয়াতে বহু সংখ্যক বিভিন্ন পর্যায়ের খেলাধূলার প্রতিযোগিতা হয়ে থাকে, কিন্তু এই ধরনের বিশ্ব মানের প্রতিযোগিতার ক্ষেত্রে, যেমন অলিম্পিক, বিশ্ব কাপ, ইউনিভার্সিয়াডের ক্ষেত্রে আমরা কিছুটা প্রশিক্ষিত লোকের অভাব বোধ করে থাকি”.

      আন্তর্জাতিক ছাত্র ক্রীড়া সংগঠনের কর্তৃপক্ষ একাধিক বারই ঘোষণা করেছেন যে, কাজান শহরে এই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রকে তাঁরা উদ্ভাবনী কেন্দ্র হিসাবেই দেখছেন ও আগামী ইউনিভার্সিয়াডের একটি অন্যতম প্রধান অবদান হিসাবেও.