আজ রাশিয়ায় স্তালিনগ্রাদের স্মরণীয় লড়াইয়ের ৬৯ তম জয়ন্তী উদযাপিত হচ্ছে. ১৯৪৩ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে ছয়মাস ব্যাপী প্রবল লড়াইয়ের পরে সোভিয়েত সেনাবাহিনীর আক্রমণে হিটলারের সেনাবাহিনী নিম্ন ভোলগার তীরে পরাজিত হয়. স্তালিনগ্রাদের শহরতলীতে সামরিক অভিযানে অংশ নিয়েছিল ১১ লক্ষেরও বেশি সোভিয়েত সামরিক অফিসার, প্রায় দেড় হাজার ট্যাঙ্ক ও ১৩৫০ বোমারু বিমান. তীব্র লড়াইয়ের পরে শত্রুপক্ষকে দ্বিভক্ত করে তাদের খতম করা সম্ভব হয়েছিল. শত্রুপক্ষে হতাহতের সংখ্যা ছিল প্রায় ১৫ লক্ষ. স্তালিনগ্রাদের লড়াইয়ে পরাজিত হওয়ার পরে হিটলার প্রথমবার দেশে তিনদিন ব্যাপী জাতীয় শোকপালনের কথা ঘোষণা করে. সোভিয়েত সামরিক বাহিনীর সাহসীকতা এবং বীরত্বের সুবাদে ঐ লড়াইয়ে জয়লাভ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের মোড় বদল করে দিয়েছিল. আজ মস্কোয় অজ্ঞাতপরিচয় সৈনিকের সমাধিতে ও মার্শাল ঝুকভের স্মৃতিমূর্তির পাদস্থলে পুস্পার্পণ করা হবে. তারপরে নগরের কর্পোরেশন অফিসে যুদ্ধে বিজয়ী প্রবীণ নাগরিকদের সাথে যুব সমাজ মিলিত হবে.