0সিরিয়ার সরকারি ফৌজ দামাস্কাস শহরের পূর্ব উপকণ্ঠে কয়েক ঘন্টা যুদ্ধের পরে জঙ্গীদের তাড়িয়ে দিতে সক্ষম হয়েছে. তারা আবার নিজেদের পক্ষ থেকে বলেছে যে, এটা হল কৌশলগত কারণে পেছিয়ে যাওয়া.


0    রবিবারে দামাস্কাসের উপকণ্ঠে লড়াই শুরু হয়েছিল. বিদ্রোহী যোদ্ধারা অংশতঃ চেয়েছিল বিমানবন্দরে যাওয়ার পথ আটকে দিতে. প্রশাসন নিজেদের পক্ষ থেকে সাঁজোয়া গাড়ী ব্যবহার করেছিল – আর, যেমন জানানো হয়েছে যে, ছিটকে যাওয়া সশস্ত্র গোষ্ঠীর পেছনে তাড়া করে যাচ্ছে. শেষ খবর অনুযায়ী এই যুদ্ধে প্রাণ হারিয়েছেন ৬০ জন.


0    দামাস্কাসের কাছে বর্তমানের যুদ্ধের আগুণ জ্বলে ওঠার আগে গত শনিবারে আরব লীগের রাষ্ট্রগুলি সিরিয়াতে নিজেদের পর্যবেক্ষকদের কাজ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছিল. রাশিয়া এই ধরনের পদক্ষেপে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে. একই সঙ্গে মস্কো ঘোষণা করেছে যে, তাদের জন্য রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে পশ্চিম ও কিছু আরব দেশের প্রস্তাবিত সিদ্ধান্তের খসড়া গ্রহণযোগ্য নয়. রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের মূল্যায়ণ অনুযায়ী তা যথেষ্ট ভারসাম্য যুক্ত নয় ও সেখানে সিরিয়ার আভ্যন্তরীণ বিষয়ে বাইরে থেকে হস্তক্ষেপের জন্য জায়গা থেকেই যাচ্ছে. রুশ বিজ্ঞান একাডেমীর প্রাচ্য অনুসন্ধান ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ ইরিনা জ্ভিয়াগেলস্কায়া এই প্রসঙ্গে বলেছেন:


0    "সিরিয়া সম্বন্ধে সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়ে প্রত্যেক বারই সমস্যার উদয় হয়েছে. এটা সেই কারণেই উদ্ভব হয়েছে যে, এই প্রকল্পে এমন সব ফাঁক রেখে দেওয়া হচ্ছে, যা ব্যবহার করে বিরোধী পক্ষকে খুবই শক্তিশালী সহায়তা করা সম্ভব হয়. সেই ভাবে তারা শক্তিশালী হওয়ার সম্ভাবনা পাবে. আর দ্বিতীয় বিষয়, যা রাশিয়া সব রকম ভাবেই প্রত্যাখ্যান করছে, তা হল- যে কোন ধরনের বহিরাগত সামরিক অনুপ্রবেশ. এখানে গুরুত্বপূর্ণ নয়, কিসের দোহাই দিয়ে, তা করা হতে পারে, কিন্তু সকলেরই বোধগম্য যে, লিবিয়ার ঘটনার পুনরাবৃত্তি কোন ভাবেই হতে দেওয়া যেতে পারে না. এমনকি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে রাশিয়ার উদ্দেশ্য করা সমস্ত রকমের আশ্বাস স্বত্ত্বেও যে, তারা হস্তক্ষেপ করবে না, লিবিয়ার পরে রাশিয়ার উদ্বেগের কারণ রয়েছে যে, এই সিদ্ধান্তকে পরে যথেষ্ট প্রসারিত ভাবেই মানে করা হতে পারে. আমার মনে হয়েছে যে, রাশিয়া সব কিছুই করবে, যাতে নিজেদের সিদ্ধান্তের খসড়াকেই সমর্থন করানো সম্ভব হয়. এই খসড়াতে সরকার ও বিরোধী পক্ষকে আলোচনার দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে, আর ক্রমানুসারে সিরিয়াতে পরিস্থিতির বদলের কথা বলা হয়েছে".


0    রাশিয়া এর মধ্যেই ঘোষণা করেছে যে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের যে কোন প্রকল্পকেই সমর্থন করবে, যদি সেখানে নিজেদের সিরিয়া সংক্রান্ত পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণের জন্য প্রস্তাবিত নীতিগত অবস্থানের উল্লেখ থাকে. এটা কোন রকমের হিংসা চলতে না দেওয়া, সেটা যে দিক থেকেই করা হোক না কেন. এটা সরকার ও বিরোধী পক্ষকে নির্দিষ্ট বিষয়ে আলোচনার জন্য আহ্বান করা আর সিরিয়ার বিষয়ে কোন রকমের বিদেশী হস্তক্ষেপ হতে না দেওয়া, কোন রকমের নিষেধাজ্ঞা ও হুমকি না দেওয়া.


0    মস্কো শহরে সম্পূর্ণ ভাবে বুঝতে পারা যায় নি যে, বাশার আসাদের পদত্যাগের বিষয়ে পশ্চিমের দেশ গুলি কেন এত উদগ্রীব. রুশ বিজ্ঞান একাডেমীর প্রাচ্য অনুসন্ধান ইনস্টিটিউটের বিশেষজ্ঞ আলেক্সেই পদশেরব মন্তব্য করে বলেছেন:


0    "আসাদ কেন ক্ষমতা থেকে পদত্যাগ করতে বাধ্য? আমাদের প্রাচ্য অনুসন্ধান ইনস্টিটিউটের তথ্য অনুযায়ী সিরিয়ার মোট জনসংখ্যার কম করে শতকরা ৬০ ভাগ মানুষ বর্তমানে আসাদকে সমর্থন করেন, সেই সমস্ত লোকেরা, যারা আসাদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করেছে, তারা মোটেও শতকরা ৪০ ভাগ নয়, অনেক কম. কোন আরব লীগ, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ বা অন্য কোনও বাইরের শক্তি ঠিক করে দিতে বাধ্য যে, কোন প্রশাসক আইন সঙ্গত, আর কে নয়? যা এখন পশ্চিমের ও বেশ কিছু আরব দেশ প্রস্তাব করছে- এটা সিরিয়ার পরিস্থিতিকে আরও বেশী করে ভারসাম্য হীণ করে দেওয়ার পথ. সেই দিকের পথ, যাতে সেখানে সম্পূর্ণ মাপের গৃহযুদ্ধ শুরু হয়. এখন আপাততঃ আলাদা কিছু সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠী মাথা চাড়া দিচ্ছে. কিন্তু সিরিয়াতে যুদ্ধ, যদি তা শুরু হয়, তবে তা মোটেও লিবিয়ার মতো ৫০ হাজার নিহত দিয়ে শেষ হবে না".


0    আশা করা হচ্ছে যে, মঙ্গলবারেই রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ আবার সিরিয়া সম্বন্ধে সিদ্ধান্ত সম্বন্ধে আলোচনা করবে. অক্টোবর মাসে রাশিয়া ও চিন তাদের পক্ষে গ্রহণযোগ্য নয়, এমন নিয়ন্ত্রণের পরিকল্পনায় ভেটো প্রয়োগ করেছিল, যেখানে বাইরে থেকে হস্তক্ষেপের সম্ভাবনা ছিল. সম্ভবতঃ, রাষ্ট্রসঙ্ঘে নতুন যুদ্ধ নতুন সিরিয়া নিয়ে এক নতুন মোড় নিয়ে চলছে.