সিরিয়ায় আরব লীগের পর্যবেক্ষণ মিশনের কার্যক্রম স্থগিত হওয়ায় জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ওপরই চাপ প্রয়োগ করা হয়েছে এবং এর মধ্য দিয়ে বিদেশী রাষ্ট্রগুলোর সাথে একটি মধ্যস্থতা সৃষ্টির প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেল গতকাল শনিবার এ খবর জানায়। দামাস্কাস উল্লেখ করে,এ ঘটনা একই সাথে সামরিক গোষ্ঠীর পক্ষ থেকে চাপ প্রয়োগ করারই শামিল বলেই মনে করা হচ্ছে। সিরিয়ায় হিংসার ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় আরব লীগ শনিবার দেশটিতে তাদের পর্যবেক্ষণ মিশনের কাজ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। আরব দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাথে আলোচনা বৈঠকের পরই আরব লীগের মহাসচিব নাবিল আল-আরাবি মিশন স্থগিতের এই ঘোষণা করেন। তিনি এক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি নেতিবাচক কারণ উল্লেখ করেন। নাবিল বলেন,সিরিয়ার সরকারবিরোধী পক্ষকে সমর্থনকারী ইসলামি সংগঠনের শীর্ষ নেতা শেখ আদনান আল-আরুর আরব লীগের পর্যবেক্ষণ মিশনের সমালোচনা করেছেন। এছাড়া,সিরিয়ায় পর্যবেক্ষণ মিশন থাকা সত্বেও সরকারি সেনাবাহিনী ও বিরোধীদলের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। যদিও আরব লীগের মহাসচিব সিরিয়ায় পর্যবেক্ষণ মিশন সাময়িকভাবে স্থগিত রাখা হয়েছে বলে জানান।

উল্লেখ্য,সিরিয়ায় গত ১০ মাস ধরে সরকারবিরোধী আন্দোলন চলছে। প্রতিদিনই দেশটি থেকে নিরীহ জনগন ছাড়াও আইনরক্ষী বাহিনীর সদস্যদের নিহত হওয়ার সংবাদ আসছে। সিরিয়া বিষয়ে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের বিশেষ বৈঠক আগামী মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।