রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রধান সের্গেই লাভরভ মনে করেন যে, উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম চেন ইরের মৃত্যুর পরে আগে কোরিয়া উপদ্বীপ এলাকার পারমানবিক সমস্যা নিয়ে হওয়া সমস্ত আলোচনা থেকে নেওয়া সিদ্ধান্ত বজায় থাকবে.

    তাঁর কথামতো, নতুন বছরের শুরুতে পিয়ংইয়ং সরকারি ভাবে ঘোষণা করেছে যে, তাদের রাজনীতিতে কোন হেরফের হবে না. এই প্রসঙ্গে লাভরভ স্বীকার করেছেন যে, গত তিন বছর ধরে এই সমস্যা নিয়ে আলোচনার প্রক্রিয়াতে যে স্থিতাবস্থা রয়েছে, তা অতিক্রম করা সম্ভব হয় নি. "প্রধান কারণ – উত্তর কোরিয়া ও ছয় পক্ষের আলোচনার অন্যান্য অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে পারস্পরিক বিশ্বাসের অভাব. এছাড়া, উত্তর কোরিয়ার সহকর্মীরা বিশ্বাস করেন না যে, আন্তর্জাতিক আইন ব্যবস্থা দেশের নিরাপত্তা বজায় রাখতে পারে", - উল্লেখ করেছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র প্রধান. এই প্রসঙ্গে লাভরভ উল্লেখ করেছেন, রাশিয়ার পক্ষ থেকে আলোচনা শুরু করার প্রয়াসকে. "আমরা উত্তর কোরিয়ার সহকর্মীদের কোন রকমের প্রাথমিক শর্ত ছাড়া আলোচনায় বসার বিষয়ে ভরসা করা উচিত্ বলে প্রমাণ দিতে পেরেছি", - মনে করিয়ে দিয়েছেন রাশিয়ার পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রধান.