সরকারি কর্মকর্তাদের নানা অনিয়মের তথ্যের সন্ধান মিলতে রাশিয়ার ইন্টারনেট প্লাটফর্মে যুক্ত হয়েছে নতুন একটি ওয়েবসাইট।বৃহত সরকার শীর্ষক নতুন প্রকল্পের আওতায় এবার ‘মূর্খবিহীন রাশিয়া ডট আরএফ’নামের একটি ওয়েবসাইট শুক্রবার রাত থেকে চালু হয়েছে।সাধারণ নাগরিকদের কাছ থেকে সরকারি আমলাদের  নানা দুর্নীতির তথ্য সংগ্রহ করার জন্যই এই পোর্টাল তৈরি করা হয়েছে বলে জানা যায়।

রুশ প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ ও তাঁর সমর্থকদের পরিচালিত সামাজিক কমিটির মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এই ধরনের ওয়েবসাইট তৈরির ধারণা সৃষ্টি হয়েছিল।সরকারি আমলাতান্ত্রিক অনিয়মের বিষয়ে আলোচনায় মেদভেদেভ তখন বলেছিলেন,আমাদের মধ্যে এতটাই বোকামি রয়েছে যেন আমরা কোন একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে পারি।তথ্য সংগ্রহ এবং এ নিয়ে আলোচনার জন্য রুশিরা এবার ওয়েবসাইটের মত সবচেয়ে সহজ একটি উপায় বেছে নিয়েছেন।এমটি বলছিলেন ‘মূর্খবিহীন রাশিয়া ডট আরএফ’ প্রকল্পের পরিচালক রাফ শাকিরভ।তিনি বলেন,‘সরকারের কাজে প্রযুক্তির ব্যবহার ও মূখর্তার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার জন্য বিশেষ কোন ধরনের সম্পদের প্রয়োজন হয় না।সাধারণ বিধিনিষেধ মেনেই  ‘মূর্খবিহীন রাশিয়া ডট আরএফ’সাইট তৈরি করা হয়েছে।এই ওয়েবসাইট যে কোন ধরনের সরকারি আমলাতান্ত্রিক অনিয়মের তথ্য পেতে সাহায্য করবে।

ভিজিটরদের সুবিধার জন্য এই সাইট বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন দিয়ে সাঁজানো হয়েছে।আর এই প্রত্যেকটি বিভাগই আজকের রাশিয়ার জন্য সবচেয়ে বড় সমস্যা।এগুলো হল-আবাসন,সড়ক ও যোগাযোগ,আইন ও নথিপত্র ইত্যাদি।এই সাইটে রেজিষ্ট্রেশনের পরই যে কেউ তথ্য প্রকাশ ও মতামত জানাতে পারবেন।তবে,প্রকাশিত তথ্যের সাথে অবশ্যই ওই অনিয়মের প্রমানস্বরুপ যে কোন নথিপত্রের ফটোকপি,ভিডিও চিত্র ইত্যাদি সংযুক্ত করতে হবে।শাকিরভ উল্লেখ করেন,প্রতিটি অনিয়মের তথ্য সামাজিক কমিটি তদন্ত করবে।

মূর্খবিহীন রাশিয়া ডট আরএফ’ওয়েবসাইট অত্যন্ত ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে সবাই মনে করছেন।যাই হোক এখন থেকে প্রতিটি সরকারি আমলাই অনিয়মের ব্যাপারে অনেক বেশি সতর্ক হবেন এবং এই কাজে অন্তত ২ বার চিন্তা করবেন।পোর্টালটি চালু করার এটিই হচ্ছে প্রধান উদ্দেশ্য।এমনটি মনে করছেন সমাজবিজ্ঞানী গ্লেব চেরকাসোভ।তিনি বলেন,‘সরকারের সহযোগিতাই যদি সামাজিক মতামতের ভিত্তিতে রাষ্ট্রের গুরতর ভুল শনাক্ত করা যায় তাহলে নিঃসন্দেহে তা হবে খুবই ইতিবাচক দিক।অন্তত সরকারি আমলাদের বুদ্ধিহীনতা সবার কাছেই পৌঁছে যাবে।হয়তবা ওই নেতাই তাঁর সহকর্মির কাজের সমালোচনা করবেন।সহকর্মির খুঁত দেখানোর মাঝে সব সময়ই তাঁরা আনন্দ পান।আমলাতান্ত্রিক পদ্ধতিতে এটি সুনির্দিষ্টি একটি নিয়ম’।

অবশ্যই,ইন্টারনেটে সত্যিকার ঘটনা কমই প্রকাশ পায়।আগামীতে সরকারি আমলাদের অনিয়ম কোন ভাবেই হতে দেয়া যাবে না। ‘মূর্খবিহীন রাশিয়া ডট আরএফ’ ওয়েবসাইটের পূর্ণ কার্যকারিতার জন্য কিছুটা সময়ের দরকার হবে।তবে আপাতত রুশিরা ওই পোর্টালে প্রকাশিত বিভিন্ন তথ্য পড়ছেন এবং নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানাচ্ছেন।