মস্কো শহরের ১৮ থেক ২১ শে জানুয়ারী "রাশিয়া ও বিশ্ব: ২০১২ – ২০২০" ফোরামে রাজনীতিবিদ, সরকারি কর্মচারী ও বিশেষজ্ঞ সমাজ বর্তমানের দশকে রাশিয়ার উন্নতির মডেল নিয়ে আলোচনা করছেন. এই সম্মেলনের এক আয়োজক, অর্থনীতি বিজ্ঞানে ডক্টরেট সের্গেই দ্রোবীশেভস্কি "রেডিও রাশিয়াকে" দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে এই দেশের বিশ্ব অর্থনীতির পরিপ্রেক্ষিতে ভবিষ্যত ও সামনে উপস্থিত বিষয় গুলি সম্পর্কে নিজের ধারণা ভাগ করে নিয়েছেন.

রাশিয়া আজ বিশ্ব অর্থনীতিতে কোন জায়গায় রয়েছে?(দ্রোবীশেভস্কি বলেছেন:)

"আমি মনে করি যে, বর্তমানে রাশিয়া ন্যায় সঙ্গত ভাবেই ব্রিকস জোটের মধ্যে পড়ে. এই জোট যথেষ্ট সম্ভাবনাময়, বড়, লক্ষ্যনীয় রকমের ভূমিকা পালন কারী, কিন্তু উন্নতিশীল অর্থনীতির দেশের সমন্বয়, যারা আগামী বছর গুলিতে বিশ্ব প্রাঙ্গণে নিজেদের জায়গা আরও মজবুত করে নেবে. এই অর্থনীতি গুলি নিজেদের আকারের কারণকে, কাঁচামালের রসদ থাকাকে ও বৃদ্ধির ক্ষমতাকে ব্যবহার করছে. তারা নিজেদের উন্নতির গতিকে উন্নত দেশ গুলির তুলনায় বেশ কিছু দ্রুত রাখতে সক্ষম হবে. প্রাকৃতিক সম্পদের ভাল ভাণ্ডার থাকায় ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে অংশ গ্রহণ করার কারণে, তাদের অর্থনীতিগুলি বৃদ্ধির ভাল ভিত্তি তৈরী করতে পারবে".

আপনার মতে, কি ধরনের কাজ রাশিয়ার আগামী আট বছরে ২০২০ সাল পর্যন্ত সামনে রাখা উচিত্? (দ্রোবীশেভস্কি বলেছেন:)

"এখানে উল্লেখ করা দরকার যে, আমাদের সামনে চিনের মতো উন্নতির হার করতে হবে এই রকমের কোন কাজ রাখার দরকার নেই, কারণ আমাদের দুই দেশের অর্থনীতি খুবই আলাদা রকমের. যখন আমরা বলি যে, রাশিয়া আগামী সাত- আট বছরে কি করতে পারে, তখন আমরা মনে করি যে, এটা যেন বিশ্ব অর্থনীতির গড় উন্নতির হারের চেয়ে কম না হয়, এটা বছরে শতকরা ৪ – ৪, ৫ ভাগ. এই ধরনের উন্নতির হার দেশের জনগনের সমৃদ্ধির স্তরকে উন্নত করবে ও বিশ্বে রাশিয়ার অবস্থানকে পরিবর্তিত করবে. এই কাজ করার জন্য প্রয়োজন হল যে সরকার যেন সম্ভাব্য অস্থিতিশীল এলাকার সৃষ্টি না করে, যখন সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগের মধ্যে ভারসাম্য নষ্ট হতে দেওয়া হয়. ইউরোপের সমস্যা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও জাপানের সম্ভাব্য সমস্যার কারণ হল যে, এই সব দেশেরা খুবই বেশী সময় ধরে সামাজিক দায়ভারকে অপূর্ণ করে রেখেছে, বাজেটের ঘাটতিও সেখানে খুবই বেশী. এখান থেকেই হিসাব বহির্ভূত রাষ্ট্রীয় ঋণ জমা হয়েছে. আমি মনে করি যে, রাশিয়ার সরকারের উচিত্ সমস্ত রকমের ব্যবস্থা নেওয়া যাতে রাশিয়াতে একই রকমের পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয়".

রাশিয়াতে কি বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যোগদানের ফলে নতুন ধরনের রপ্তানীর সম্ভাবনা হতে পারে? (দ্রোবীশেভস্কি বলেছেন:)

"আমি বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যোগদানের বিষয় কে রাশিয়া রপ্তানীর ক্ষেত্রে কিছু বাড়তি সুবিধা পেতে পারে, এই রকমের ধারণার সঙ্গে জড়াতে চাইবো না. বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা – এটা বিশ্বের বাজার অর্থনীতির ক্লাব, তাই রাশিয়ার জন্য একমাত্র উপায় হল বিশ্বের রপ্তানী বাজারে নিজেদের দেশে তৈরী জিনিষ উপস্থিত করা – এর মানে প্রতিযোগিতায় সক্ষম এই রকমের জিনিষ তৈরী করা. বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা রপ্তানীর ক্ষেত্রে ঐতিহ্য অনুযায়ী করা দ্রব্য গুলির ক্ষেত্রে কিছু বাধা হঠিয়ে দিতে পারে".