আজ তুরস্ক ও ইরান আর্থিক সহযোগিতা আরও মজবুত করা এবং দুই দেশের ব্যাঙ্কগুলির মধ্যে সহযোগিতা আরও জোরদার করার কথা ঘোষণা করেছে. তারা ২০১৫ সাল নাগাদ দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যিক লেনদেন দুইগুন বাড়াতে দৃঢ়প্রতিজ্ঞ. আঙ্কারা সফরকালে ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলি আকবর সালেহি ঘোষণা করেছেন, যে বার্ষিক বাণিজ্যিক লেনদেন দুই দেশের মধ্যে ২০১১ সালের দেড় হাজার কোটি ডলার থেকে বেড়ে ২০১৫ সালে ৩ হাজার কোটি ডলারে পৌঁছাতে পারে.

   তুরস্কে দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক সমাবেশে সালেহি ঘোষণা করেছেন, যে দুই দেশের সরকার এই প্রক্রিয়া ত্বরাণ্বিত করার জন্যে সর্বোতভাবে চেষ্টা করবে. ঐ অর্থনৈতিক সমাবেশে আরও ঘোষণা করা হয়েছে, যে তুরস্ক ইরানের খনিজ পদার্থ রপ্তানীর ক্ষেত্রে সেতুর ভূমিকা নেবে. তুরস্ক ন্যাটো জোটের সদস্যদেশ হলেও ইরানের বিরূদ্ধে আমেরিকা ও ইউরোপীয় সংঘ কতৃক পরিকল্পিত বিধিনিষেধ আরোপ মেনে নেয়নি. কারন তুরস্ক ভীষনভাবে ইরানের খনিজতেল ও প্রাকৃতিক গ্যাসের উপর নির্ভরশীল.

      আঙ্কারা ও তেহেরানের ব্যাঙ্কগুলির মধ্যে সহযোগিতা জোরদার করার ঘোষণা পশ্চিমী দেশগুলির ইরানের ওপর চাপ বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃস্টি করতে পারে.