রাজকীয় কেনসিংটন প্রাসাদের পার্কে রাশিয়ার উদ্যান উদয় হবে. লন্ডনের কেন্দ্রে ছোট্ট একটা রাশিয়ার দ্বীপ সরকারি ভাবে রুশ অলিম্পিক চত্বর হতে চলেছে ২০১২ সালের গ্রীষ্ম অলিম্পিক প্রতিযোগিতার সময়ে. দুই সপ্তাহেরও বেশী সময় ধরে কেনসিংটন প্রাসাদের বাগানের অংশ রাশিয়াকে ভাড়া দেওয়া হবে আর তা রাশিয়ার হয়ে যাঁরা এই প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে অথবা সমর্থন করতে যাচ্ছেন, তাঁদের কেন্দ্রীয় দপ্তর হতে চলেছে. আপাততঃ রাজকীয় উদ্যানের নৈঃশব্দ কোন হাতুড়ির শব্দে লঙ্ঘণ করা হচ্ছে না, প্রতিযোগিতার আগেই এখানে প্যাভিলিয়ন তৈরী করা শুরু হবে, এখন গ্রেট ব্রিটেনে শুধু রাশিয়া দলের পার্কের প্রস্তাবনাই করা হয়েছে.

    পার্কস ফীল্ড, যেখানে রাশিয়ার উদ্যান হবে, এটা কেনসিংটন প্রাসাদের উদ্যানের একটা খেলাধূলার জায়গা. এখানে ফুটবল খেলা সম্ভব, তীরন্দাজী করা সম্ভব. তাছাড়া, এখানে মাঝে মধ্যেই রাজবাড়ীর হেলিকপ্টার নামার জন্য ব্যবহার করা হয়ে থাকে. কিন্তু কয়েক মাস বাদেই এই মাঠে পিকনিকের বন্দোবস্ত করা হবে, বার তৈরী করা হবে ও রাশিয়া দলের পৃষ্ঠপোষক দের জন্য বেশ কিছু প্যাভিলিয়ন তৈরী করা হবে. এখানেই ক্রীড়া প্রতিযোগিতার জন্য ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল হবে, রুশ অলিম্পিক কমিটির ১০০ বছর উপলক্ষে প্রদর্শনীও এখানেই করা হবে, রুশ খাবার দাবার চেখে দেখার জায়গাও এখানেই থাকবে.

    তাও এই রুশ উদ্যানের প্রধান বীর ও মুখ্য অনুষ্ঠানের কেন্দ্র হবেন রুশ পদক জয়ী খেলোয়াড়েরা ও তাঁদের সঙ্গে ফ্যানদের সাক্ষাত্কার, শুধু তাদের সঙ্গেই নয়, যারা লন্ডনে এসেছেন, এই বিষয়ে মন্তব্য করে উচ্চ স্তরের খেলাধুলায় সাফল্য তহবিলের পর্যবেক্ষক সভার সভাপতি ফিওদর শ্যেরবাকোভ বলেছেন:

    "আমরা রুশ উদ্যানের মাঠে একটি উদ্ভাবনী প্রকল্প করতে চলেছি. প্রতিযোগিতায় যোগ দেওয়া পরে খেলোয়াড়েরা বিশেষ একটি হল থেকে সরাসরি ভিডিও কনফারেন্স করতে পারবেন, নিজেদের সমস্ত সমর্থক দের সঙ্গেই কথা বলতে পারবেন, যারা সেই সময়ে ইন্টারনেটে থাকবেন".

    রুশ দলের উদ্যান শুধু লন্ডনেই থাকবে না. একই ধরনের চত্বর তৈরী করা হবে সব কটি বিশ্ব মানের প্রতিযোগিতাতেই, যেখানে রুশ খেলোয়াড়েরা অংশ নেবেন. এই রকমের আশ্বাস দিয়েছেন শ্যেরবাকোভ.

    কেনসিংটন প্রাসাদ ঐতিহাসিক ভাবেই রাশিয়ার স্মৃতি বিজড়িত. উনবিংশ শতকে এখানে রাণী ভিক্টোরিয়া থাকতেন, যাঁর নাতনি আলেকসান্দ্রা ফিওদরভনা ছিলেন শেষ রুশ সম্রাজ্ঞী ও দ্বিতীয় নিকোলাই এর স্ত্রী.

    বিংশ শতকের শেষে এখানে রাজপুত্র উইলিয়ামসের বাবা মা থাকতেন, প্রিন্স চার্লস ও প্রিন্সেস ডায়ানা. তাঁরা এই প্রাসাদ বেছে নিয়েছিলেন কারণ এর চার পাশেই ছিল সবুজ মাঠ, যেখানে তাঁদের ছেলেমেয়েরা খেলতে পারতো. বর্তমানে এখানে কেট মিডলটন ও প্রিন্স উইলিয়ামসের সরকারি বাস ভবন. আপাততঃ তাঁরা রয়েছেন ওয়েলসে, যেখানে প্রিন্স সামরিক বাহিনীতে কাজ করছেন.

    অলিম্পিকের সময়ে লন্ডনে রুশ উদ্যানই কিন্তু একমাত্র রুশ চত্বর হবে না. আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির নিয়ম মেনে ২০১৪ সালের শীত অলিম্পিকের রাজধানী সোচী শহর এখানে সোচী – সেন্টার খুলবে, যা কেনসিংটন পার্কের অন্যদিকে রয়াল অ্যালবার্ট হলের পাশে খোলা হবে.