রাশিয়া রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে সিরিয়া সম্পর্কে খসড়া সিদ্ধান্তের নতুন ধরণ প্রচার করেছে. এটি হল রাশিয়ার দ্বারা প্রস্তাবিত খসড়া সিদ্ধান্তের তৃতীয় ধরণ, যার উদ্দেশ্য হল ২০১১ সালের মার্চ থেকে চলা গৃহ-সঙ্ঘর্ষের অবসান ঘটানো, মঙ্গলবার জানিয়েছে “বি.বি.সি” কর্পোরেশন. পশ্চিমী কূটনীতিজ্ঞরা রাশিয়ার এ খসড়া সিদ্ধন্ত আলোচনা করতে চান মঙ্গলবার. তবে, এখনই তাঁরা ঘোষণা করছেন যে, বয়ানে প্রত্যক্ষ কোনো লক্ষণ নেই যে, মস্কো সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের শাসন ব্যবস্থার আরও বেশি নিন্দে করা সম্পর্কে পশ্চিমী শরিকদের অনুরোধ শুনেছে. রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদ কয়েক মাস ধরে নিষ্ফলভাবে চেষ্টা করে চলেছে সিদ্ধান্ত গ্রহণের, যা সমস্ত পক্ষের দ্বারা গ্রহণযোগ্য হবে. খসড়ার আগের ধরণে রাশিয়া এ দেশে সঙ্ঘর্ষের সমস্ত পক্ষের দ্বারা হিংসা ও অত্যাচার ঘটতে না দেওয়ার প্রয়োজনীয়তার কথা ঘোষণা করেছিল. গত সপ্তাহে রাশিয়ার উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী গেন্নাদি গাতিলোভ “ইন্টারফাক্স” সংবাদ সংস্থাকে বলেন যে, রাশিয়ার খসড়া সিদ্ধান্তে একসারি পশ্চিমী দেশের দ্বারা প্রস্তাবিত সংশোধনের উদ্দেশ্য ছিল দামাস্কাসে শাসন ব্যবস্থার বদল করা এবং রাশিয়ার প্রস্তাবকে অর্থহীন করে তোলা. ২০১১ সালের মার্চ থেকে সিরিয়ায় সৈন্যবাহিনী এবং বিরোধীপক্ষের মাঝে সশস্ত্র সঙ্ঘর্ষ চলছে, যারা রাষ্ট্রপতির পদ থেকে বাশার আসদের অপসারণের দাবি করছে. এ সময়ে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের তথ্য অনুযায়ী, বিরোধে ৫ হাজার জনেরও বেশি সিরিয়াবাসী নিহত হয়েছে. বহু দেশ, সেই সঙ্গে ইউরোসঙ্ঘ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও তুরস্ক  সিরিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে. গত সোমবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক বান কি মুন সিরিয়ায় হিংসা ও অত্যাচার অবিলম্বে বন্ধ করার জন্য আসদকে আহ্বান জানিয়েছেন.