নতুন বছর ও বড়দিনের ছুটির পর রাশিয়ার ক্ষমতাসীন সরকারের সমর্থন পূর্বের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে।সর্বরাশিয়া সামাজিক মতামত গবেষণা কেন্দ্রের (ভিসিইওএম)তথ্য মতে,প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভের ৫৭ ভাগ ও প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমীর পুতিনের সমর্থন হচ্ছে ৫৮ ভাগ।গত ডিসেম্বর মাসের শুরুতে যে পরিসংখ্যান ছিল তার তুলনায় এই রেটিং বৃদ্ধির হার হচ্ছে ৫১ ভাগ।

রাশিয়ায় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আর মাত্র ২ মাসেরও কম সময় বাকি আছে।প্রেসিডেন্ট পদের অনলাইন জরিপে জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে সবার শীর্ষে আছেন ভ্লাদিমীর পুতিন।সমাজবিজ্ঞানীদের করা প্রশ্ন ছিলঃযদি আসন্ন কোন রোববার প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়,তাহলে আপনি কোন প্রার্থীর পক্ষে ভোট দিবেন?।জরিপে দেখা যায়,৪৮ ভাগ ভোট পরে একক রাশিয়া দলের হয়ে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী পুতিনের পক্ষে।ভিসিইওএম জানায়,গতবছরের ডিসেম্বর মাসের শুরুতে এই একই প্রশ্নের উত্তরে পুতিনের পক্ষে ভোট পরেছিল ৪২ শতাংশ।ফলাফলে কেন এই পরিবর্তন?।সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে রাশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিজ্ঞান একাডেমীর কর্মকর্তা ইভগেনী প্রিমাকোভ বলেন,আজকের রাশিয়ার দিকে তাকালে আমরা দেখতে পাই,রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য পুতিনই হচ্ছেন একজন আদর্শ নেতা।আমার গভীর ধারণা মতে,পুতিন সবারই পচ্ছন্দের একজন প্রার্থী।এর আগে প্রেসিডেন্ট থাকাকালিন পুতিনের কার্যক্রম অবশ্যই নির্বাচনের পূর্বে বিবেচনা করা হচ্ছে।প্রতিটি রাজনীতিবিদদের মতই পুতিনেরও কিছু ব্যর্থতা ছিল।এক্ষেত্রে প্রিমাকোভ উল্লেখ করেন,সত্যিকার অর্থে জঙ্গিবাদী কার্যক্রমের বিরুদ্ধে পুতিনের অবস্থান ছিল কঠোর।তিনি একই সাথে আমাদের দেশের ভৌগলিক সীমানা রক্ষা,সবধরনের রঙ্গীন বিপ্লবের পরিসমাপ্তি,বিশ্ব মন্দা সত্বেও অর্থনৈতিক উন্নয়নসাধন,দেশের সাধারণ জনগনের জীবনাত্রার মান বৃদ্ধি ও রাশিয়ার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করেছেন।

এদিকে আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের জন্য নতুন বছরের শুরুতে অন্যান্য দলের প্রার্থীদের জনপ্রিয়তার রেটিং অপরিবর্তন রয়েছে।এতে উল্লেখ করা হয়,কমিউনিস্ট দলের নেতা গেনাদী জুগানোভ ১০ ভাগ,ডেমোক্রেটিক দলের ভ্লাদিমীর জিরোনভস্কী ৯ ভাগ ও ন্যায্য রাশিয়া দলের সেরগেই মিরানোভ ৫ ভাগ ভোট পেয়েছেন।অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিখাইল প্রোখরভের পক্ষে ৩ ভাগ ও আপেল দলের প্রার্থী গিওর্গি ইয়াভলেন্সকী ২ ভাগ ভোট পয়েছেন।

সর্বরাশিয়া সামাজিক মতামত গবেষণা কেন্দ্র(ভিসিইওএম)গত ৭ ও ৮ জানুয়ারি রাশিয়ার ৪৬টি অঞ্চলের ১৩৮ এলাকা ও প্রজাতন্ত্রের ১৬০০ জন রুশীদের ওপর ওই জরিপ কার্যক্রম পরিচালনা করেছিল।