0নতুন আসা বছর কি তৈরী করছে? ২০১২ সালকে এখনই বিশ্বাস নিয়ে বলা যেতে পারে পরিবর্তনের বছর. কিছু না হলেও প্রত্যেক মাসেই হয় এই দেশে, নয়তো অন্য দেশে, হয় রাষ্ট্রপতি নয়তো পার্লামেন্ট নির্বাচন হতে চলেছে. বোধহয়, সবচেয়ে লক্ষ্যনীয় হবে রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স আর আরব বসন্তের দেশ গুলিতে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন. তারই সঙ্গে বিশ্ব উদ্বিগ্ন হয়ে থাকবে জ্বালানী শক্তি ও পারমানবিক নিরাপত্তার প্রশ্ন নিয়ে.


0    এই বছরের প্রধান কৌতূহলের বিষয় হতে চলেছে আগের মতোই সেই সমস্ত প্রশ্নের জবাব খোঁজা, যা বিশ্ব অর্থনৈতিক সঙ্কটের সঙ্গে উদ্ভব হয়েছে. ওয়াল স্ট্রিট দখল করো আন্দোলন এখন উত্তর আমেরিকা মহাদেশ পার হয়ে পশ্চিমের বহু দেশেই ছড়িয়ে পড়েছে. তার জনপ্রিয়তা বিশেষ করে যুব সমাজে হওয়া, প্রমাণ করে দিয়েছে শুধু একটা বিষয়ই যে, বিশ্বে রাজনৈতিক ব্যবস্থার সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে, এই রকম কথা মনে করে স্ট্র্যাটেজি ২০২০ তহবিলের সভাপতি মিখাইল রেমিজোভ বলেছেন:


0    "আজ পশ্চিমে টের পাওয়া যায় এমন নেতৃত্বের সঙ্কট সৃষ্টি হয়েছে, উন্নত দেশ গুলিতে বিশেষ করে, যেখানে সঙ্কট তৈরী হয়েছে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত নেওয়া নিয়ে, নতুন করে পথ নির্দেশ নিয়ে. আর এই সঙ্কটকে পার হওয়া দরকার, যদি উন্নত দেশ গুলি তাদের বৃদ্ধিকে আবার পুনর্স্থাপন করতে চায়".


0    আগের মতই জটিল থাকবে তথাকথিত আরব বসন্তের ও উত্তর আফ্রিকার এবং নিকট প্রাচ্যের দেশ গুলিতে. আর সেখানে সম্ভবতঃ পরিস্থিতির বদল হবে নাটকীয় ভাবেই, এই কথা মনে করে মিখাইল রেমিজোভ বলেছেন:


0    "কোথাও এটা হতে চলেছে ঐস্লামিকদের প্রশাসনে ক্ষমতা দখল দিয়ে, কোথাও – গৃহযুদ্ধ দিয়ে. যে কোন ভাবেই হোক এখানে একটা অস্থিতিশীলতার যুগ শুরু হয়েছে. স্থানীয় বিরোধের সময়, সম্ভবতঃ বাড়তে চলেছে দেশ ছেড়ে পলাতক উদ্বাস্তু লোকেদের সংখ্যাও, যা ইউরোপকেও অস্থিতিশীল করবে. আর এখানে আশা বাদের কোন ভিত্তি নেই".


0    ফ্রান্স বা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো রাশিয়াতে দেশের নতুন প্রধান নির্বাচন নিয়ে উত্তেজনা ততটা তুঙ্গে ওঠেনি. রাষ্ট্রপতি পদে প্রার্থী হয়ে দাঁড়ানো, বর্তমানের প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে গুরুত্ব দেওয়ার মতো প্রতিযোগী নেই বলেই মনে করেন রাজনীতিবিদেরা. কিন্তু সেই সমস্ত সমস্যা যা নিয়ে আগামী রাশিয়ার প্রধান ব্যস্ত হতে বাদ্য হবেন, তাও কম নয়, এই কথা মনে করে রাশিয়া গণতন্ত্রের সমস্যা গবেষণা তহবিলের সভাপতি ম্যাক্সিম গ্রিগোরিয়েভ বলেছেন:


0    "আমরা বুঝতে পারি যে, গত বছরে আমরা দেখতে পেয়েছি দেশের মধ্যবিত্ত শ্রেনীর সক্রিয়তা, যারা বিগত দশকে যথেষ্ট গুরুতর ভাবে আকার ধারণ করেছে. মধ্য বিত্ত শ্রেনী সংখ্যায় বেড়েছে. তা বিভিন্ন মূল্যায়ণে, বর্তমানে শতকরা ১৫ থেকে ২৫ ভাগ, আর তারা শুরু করেছে নিজেদের রাজনৈতিক ভাবে প্রকাশ করতে. তারা এখন দাবী করেছেন যাতে প্রশাসনের মনোযোগ তাদের প্রতি বাড়ে. প্রশাসনের পক্ষে কতটা সঠিক ভাবে এই মধ্যবিত্ত শ্রেনীর সঙ্গে কথোপকথন তৈরী করা সম্ভব হবে, তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন".


0    পারমানবিক নিরাপত্তা একই সঙ্গে এই বছরের আলোচনার তালিকা থেকে বাদ পড়বে না. মার্চ মাসের শেষে সিওল শহরে এই সমস্যা নিয়ে শীর্ষবৈঠক হবে, সেখানে দক্ষিণ কোরিয়া স্থির করেছে উত্তর কোরিয়ার উপ প্রধানমন্ত্রী কান সোক চু কে নিমন্ত্রণ করার. আর তার কাজে অংশ নেবেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা ও গণ প্রজাতন্ত্রী চিনের সভাপতি হু জিনটাও. তাঁদের আলোচনার বিষয় সম্ভবতঃ হতে চলেছে উত্তর কোরিয়া পারমানবিক পরিকল্পনা. আর মে মাসের শেষে, কিন্তু তা আবার চিকাগো শহরে ন্যাটো জোটের শীর্ষবৈঠক হবে আরও একটি জটিল এলাকা নিয়ে – আফগানিস্তান নিয়ে.


0    গরমের দুটি মাস খুবই খেলাধূলা সংক্রান্ত হতে চলেছে. বাস্তবে সমস্ত জুন মাস ধরে ফ্যানেরা ইউরোপে জোড়া ফুটবলের যুদ্ধ, যা পোল্যান্ড ও ইউক্রেনে হতে চলেছে তার সাক্ষী হবেন. আর ২৭শে জুলাই থেকে ১২ ই আগষ্ট সুবিশাল বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গণে পরিণত হবে লন্ডন. এবারের প্রতিযোগিতা হবে জয়ন্তী বর্ষের, তিরিশতম, আর ব্রিটেনের রাজধানী বিশ্বের প্রথম শহর হতে চলেছে, যেখানে এই খেলা হতে চলেছে এই নিয়ে তৃতীয় বার, তারা মর্যাদা পেতে চলেছে তৃতীয় বার গ্রীষ্ম অলিম্পিকের রাজধানী হওয়ার. অলিম্পিক ও প্যারা অলিম্পিক গেমসের প্রধান স্টেডিয়াম হবে অলিম্পিক পার্কের রাণী এলিজাবেথের নামাঙ্কিত স্টেডিয়াম, যার নির্মাণ কাজ চলেছিল তিন বছর ধরে ও খরচ হয়েছে ৫৭ কোটি পাউন্ড.


0    এটা শুধু সামান্য কিছু ঘটনা, যা এই শুরু হওয়া বছরে অলক্ষিতে হবে না. বছর বোধহয় খুব কম কিছু চমকিত হওয়ার মতো ঘটনা নিয়ে আসবে না. অবশ্যই বিশ্বাস করতে ইচ্ছা হয় যে, এই চমক গুলি যেন শুধু ভাল লাগার মতোই হয়.