মিয়ানমার (প্রাক্তন বর্মার) রাষ্ট্রপতি থেইন সেইন ৬৫১ জন বন্দীকে ক্ষমাদানের কথা ঘোষণা করেছেন, জানিয়েছে “বি.বি.সি” কর্পোরেশন. মুক্ত করা লোকেদের মধ্যে থাকবে ১৯৮৮ সালে ব্যাপক সরকারবিরোধী প্রতিবাদ আন্দোলনের অংশগ্রহণকারীরা. শুক্রবারই তাদের জেল থেকে মুক্ত করা শুরু হবে. এমন সিদ্ধান্তের উপর জোর দিয়েছিল বিশ্ব জনসমাজ, বিশেষ করে মানব অধিকাররক্ষীরা. তাদের তথ্য অনুযায়ী মিয়ানমার জেলখানায় রয়েছে প্রায় ২ হাজার রাজনৈতিক বন্দী. ৫-৬ই জানুয়ারী মিয়ানমায় বিগত ৫০ বছরে প্রথম সফর করেন গ্রেট-বৃটেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী উইলিয়াম হেগ, যিনি দেশের নতুন কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানান গণতান্ত্রিক সংস্কার চালিয়ে যেতে এবং রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্ত করতে.