সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি দেশের নাগরিকদের “নবীকৃত সিরিয়ার” গঠনে অংশগ্রহণের আহ্বান জানিয়েছেন, এবং যারা সঙ্কট ক্রমানুবর্তনে সাহায্য করছে, তাদের দেশদ্রোহী বলে অভিহিত করেছেন. প্রাক্কালে দামাস্কাস বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তৃতা দিয়ে তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে সংগ্রাম হল “সর্বজাতীয় কর্তব্য”. আসদ মার্চ মাসের প্রথম সপ্তাহে নতুন সংবিধানের খসড়া নিয়ে গণভোট আয়োজনের এবং মে-জুন মাসে সাধারণ নির্বাচন আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন. তিনি দেশপ্রেমের স্থিতিতে থাকা বিরোধীপক্ষের অংশগ্রহণে সম্প্রসারিত সরকার গঠনের সম্ভাবনা বাদ দেন নি, এবং তাছাড়া নিজের পদ ত্যাগ করার প্রস্তুতিও প্রকাশ করেছেন, “যদি জনগণ তা চায়”. জাতীয় সংলাপ পরিচালনা সম্পর্কে সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বলেন যে, “আগামীকালই তা শুরু করতে প্রস্তুত”, কিন্তু বিরোধীপক্ষ “তাতে আগ্রহ প্রকাশ করছে না”. দেশে আন্দোলন শুরু হওয়ার সময় থেকে চতুর্থ, জাতির প্রতি সম্ভাষণে তিনি উল্লেখ করেন, “আমি সংলাপ চালাতে চাই শুধু জাতীয় বিরোধীপক্ষের সাথে, যারা বিদেশী দূতাবাস থেকে নির্দেশ পায় তাদের সাথে নয়”.