রাশিয়ায় ৯ দিনব্যাপী ছুটি শুরু হয়েছে।পুরো দেশ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নতুন বছরকে স্বাগতম জানিয়েছে।রুশিদের কাছে এটিই হচ্ছে সবচেয়ে পছন্দের উত্সব।রাশিয়ায় একটি প্রচলিত কথা আছে,‘যেভাবে নতুন বছর বরন করবেন,ঠিক সেইভাবেই আপনি ওই বছরটি কাটাবেন’।সঙ্গত কারণেই এই উত্সবের জন্য রুশিরা একটু আলাদা করেই প্রস্তুতি  নিয়ে থাকেন।পশ্চিমা দেশগুলোর চিরাচরিত আচার অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে পারিবারিক পরিসরে বড় দিন উদযাপন,নিজ বাড়ীতে বা কর্মক্ষেত্রে ক্রিসমাস ট্রি স্থাপন,আপনজনদেরকে উপহার দেওয়া ও সান্তা ক্লুজ-তো রয়েছেই।

রাশিয়ায় নতুন বছর উদযাপনের ঐতিহ্যের মধ্যে সান্তা ক্লুজ ছাড়াও রয়েছে মস্কোর ক্রেমলিনের স্পাস টাওয়ারের ঘড়ি।ঠিক ১২টা ঘন্টা বাঁজার মধ্য দিয়েই রাশিয়ায় নতুন বছর শুরু হয় এবং ঘন্টা বাঁজার পূর্বে দেশের নাগরিকদের উদ্দেশ্যে দেওয়া প্রেসিডেন্টের অভিনন্দন বানী সবকটি ফেডারেল টেলিভিশনে প্রচারিত হয়।দিমিত্রি মেদভেদেভের জন্য এটিই ছিল প্রেসিডেন্ট হিসেবে তাঁর দেওয়া সর্বশেষ বানী।মেদভেদেভ বলেন,‘একথা সত্য যে, আমরা সকলেই আলাদা। আর এই আলাদা হওয়াই আমাদের শক্তি।তা যেমন রয়েছে একে অপরকে শোনার, বোঝার ও সম্মানের মধ্যে,একত্রে যে কোন ধরনের সমস্যা সমাধান করা ও সাফল্য অর্জন করায়।এই রাত্রে আমি আপনাকে ও আপনার নিকট জনকে শুভ নববর্ষের শুভেচ্ছা জানাই,সুস্বাস্থ্য ও সমৃদ্ধি কামনা করি,সকলের জন্য আশা করব যাতে আপনাদের জীবনে ভালবাসা ও আনন্দ থাকে, যাতে আপনাদের সব স্বপ্ন সফল হয়’।

মস্কোতে নতুন বছরের রাতে রেড স্কায়ার উত্সবের প্রানকেন্দ্রে পরিনত হয়।এটি সত্যিই স্বপ্নের।নতুন বছর,তুষাড়পাত,ঘড়ির ঘন্টার শব্দ,শ্যাম্পেইন ও ক্রেমলিনের বুক চিড়ে আতশবাজির আলোকসজ্জা।শুধুমাত্র এর জন্যই ডিসেম্বরের শেষ দিকে রাশিয়ার রাজধানীতে ছুটে আসেন অনেক বিদেশি পর্যটক ও হাজার হাজার রুশিরা।মস্কোতে বেড়াতে আসা এমনই একজন বলছেন,‘২৩ ঘন্টা গাড়িতে চড়ে আসতে হয়েছে।আমি খুবই চাচ্ছি যে অসাধারণ কিছু ঘটবে এবং তা হবে আনন্দদায়ক।সেই অর্থে আমি মনে করি শুধুমাত্র তা হচ্ছে মস্কো এবং স্পাস টাওয়ার’।

ব্যাতিক্রমধর্মী অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে বর্ষবরন করেছেন তুমেনি এলাকার অধিবাসীরা।প্যারাসুটে উড়ন্ত অবস্থায় হাতে শ্যাম্পেইন আর ক্যালেন্ডারের পাতায় ১ জানুয়ারি সংখ্যায় দাগ দিয়ে খোলা আকাশে নতুন বছরকে বরন করে নিয়েছেন।

‘সত্যিই অসাধারণ।এ ঘটনাটি এমনি যা আমরা এর পূর্বে কখনও দেখি নাই।ঠিক নিচে নামার সময়ই আতশবাজি ফোটানো শুরু হয়,সত্যিই চমত্কার!।আমি এমনকি ঘড়ির কথাও ভুলে গেছিলাম।মনে করেছিলাম,নতুন বছর শুরু হয়ে গেছে, কিন্তু আমরা তখনও প্যারাসুটে উড়ছি’।

শুধুমাত্র নতুন বছরের রাতেই মস্কো নগরীর সড়কগুলোতে অর্ধ মিলিয়ন নগরবাসী ঘুড়ে বেড়িয়েছেন এবং পুরো দেশের কথা বললে এই সংখ্যা হবে দশ মিলিয়নের মত।সেন্ট পিটার্সবার্গে কেউ বা খোলা আকাশের নীচে নাচ-গানে মগ্ন ছিলেন,আবার দূরপ্রাচ্যের ব্লাগাভেশেনস্কে মাইনাস ২৫ ডিগ্রে সেন্টিগ্রেড তাপামাত্রায় অনেকেই স্নান করেছেন।পুরো রাশিয়া ৯ টি স্থানীয় সময় অনুযায়ি বিভক্ত থাকায় রুশিরা নতুন বছরকে মোট ৯ বার স্বাগতম জানিয়েছে।