চীনে ভূতপূর্ব আমলা ও তার স্ত্রীকে শতশত গৃহহীন ও সর্বশান্ত মানুষকে ক্রীতদাসের মতো ব্যবহার করার জন্য কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে. রিয়া নোভোস্তি সংবাদসংস্থা জানাচ্ছে, যে উক্ত অপরাধে অভিযুক্ত চীনের মধ্যঞ্চলে অবস্থিত সীচুয়ান প্রদেশে প্রতিবন্ধী সামাজিক কেন্দ্রের প্রধান জেন লিনসুউয়ান ও তার পত্নী. তারা ১৯৯৮ সালে গৃহহীন ও নিরন্নদের জন্য পান্থনিবাস প্রতিষ্ঠা করে. ঐ পান্থনিবাসের বাসিন্দাদের স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার অধিকার ছিল না. তাদের সহজ পেশাদারী প্রশিক্ষণ দেওয়া হত, তারপরে তাদের বড় বড় শহরে পাঠানো হত রোজগার করার জন্য. মুনাফা পান্থনিবাসের মালিক ও কর্মীরা ভাগ করে নিতো. সবমিলিয়ে জেন ১০০টিরও বেশি কলকারখানায় ক্রীতদাসদের পাঠিয়েছিল, যার মধ্যে রাসায়নিক কারখানাও আছে. একটি রাসায়নিক কারখানায় ঘটা দুর্ঘটনার তদন্ত করার সময় পুলিশ জেন ও তার স্ত্রীর সন্ধান পায়. ঐ রাসায়নিক কারখানায় ক্রীতদাসের মতো শর্তে ১৮ জন শ্রমিক কাজ করতো. স্থানীয় আদালতের রাযে জেনকে ৩ বছরের এবং তার পত্নীকে দেড় বছরের কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে.