ব্রিক দেশ গুলি আসন্ন ভবিষ্যতে বিশ্বের পাঁচটি প্রধান অর্থনীতির দলে ঢুকবে. এই সম্বন্ধে গোল্ডম্যান স্যাকস বিনিয়োগ সংস্থা থেকে প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলা হয়েছে, যা রাষ্ট্র চারটির সংক্ষিপ্ত সমবেত ব্রিক নামকরণের দশম বর্ষ উপলক্ষে প্রকাশ করা হয়েছে (এখানে দক্ষিণ আফ্রিকার সূচক গুলিকে হিসাবে আনা হয় নি). গবেষণা পত্রে উল্লেখ করা হয়েছে যে, উল্লিখিত দেশ গুলি নিজেদের অর্থনৈতিক উন্নতির শীর্ষ স্থান পার করে ফেলেছে, আর আগামী দশকে তাদের উন্নতির গতি শ্লথ হতে চলেছে. কিন্তু এই অসংগঠিত জোটের অংশীদারেরা বিশ্ব অর্থনীতিতে উল্লেখ যোগ্য ভূমিকা নেওয়া চালিয়ে যাবে.

জিম ও নিলের সহকর্মীরা যে এই রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন, তা প্রতীকী, কারণ তিনিই দ্বিসহস্র শতকের শুরুতে এই নামকরণ করেছিলেন. মনে করিয়ে দিই যে, এই নামের পিছনে রয়েছে সবচেয়ে দ্রুত উন্নতিশীল চারটি দেশ ( আর ২০১১ সালের বসন্ত কালের পর থেকে ব্রাজিল, রাশিয়া, ভারত ও চিনের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, যদিও রিপোর্টে তার উল্লেখ করা হয় নি). বিনিয়োগ ব্যাঙ্কের বিশ্লেষকেরা বিশেষ করে বলেছেন: ২০০১ সাল থেকে ব্রিক দেশ গুলি নিজেদের উন্নতির নেতৃস্থানীয় দেশ বলে আত্মপ্রকাশ করতে পেরেছে, তাদের বিশ্ব অর্থনীতিতে সংযোজন শতকরা এগারো থেকে পঁচিশ শতাংশে পৌঁছেছে. আলাদা করে কিছু দেশ এই সূচকে বিশ্বের নেতৃত্বে থাকা অর্থনীতিকেও পার হয়ে গিয়েছে, এই কথা উল্লেখ করে রেডিও রাশিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে অর্থনীতিবিদ ম্যাক্সিম ব্রাতেরস্কি বলেছেন:

"ব্রাজিল বার্ষিক জাতীয় উত্পাদনের সূচক অনুযায়ী গ্রেট ব্রিটেনকে পার হয়েছে ও ২০২০ সালের মধ্যে সম্ভবতঃ উন্নত দেশ গুলির মধ্যে চতুর্থ হবে. প্রথম তিনটি দেশ আগের মতই থাকবে, যদিও চিন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের মধ্যে স্থান পরিবর্তন করবে, খুবই কাছে কোথাও থাকবে রাশিয়া".

এই রিপোর্ট অনুযায়ী ব্রিক দেশ গুলির বিশ্বের অর্থনৈতিক উন্নতিতে অংশ বেড়ে হতে চলেছে ২৫ থেকে ৫০ শতাংশ. কিন্তু এতেই গোল্ডম্যান স্যাকস সংস্থার ধারণায় সুখবর শেষ হতে চলেছে. আগামী বছর গুলিতে উন্নতির গতি শ্লথ হবে, আর এই সমস্ত দেশে উত্পাদনের জন্য খরচ ক্রমাগত বেড়েই চলবে. রিপোর্টের শেষে বলা হয়েছে যে, ইউরোপীয় অঞ্চলে সঙ্কট, বিক্রীর জন্য জায়গা কমিয়ে দেবে, যার ফলে বিনিয়োগকারীরা বাজার ছেড়ে চলে যাবেন. এই ধরনের চিন্তা ঘটনার সমস্ত দিককে বিচার করে করা হয় নি বলে মনে করে বিনিয়োগ বিশেষজ্ঞ রোমান আন্দ্রেয়েভ বলেছেন:

"একথা সত্য যে, ভবিষ্যত বাণী করা হয়েছে যে, চিনের উন্নতির গতি শ্লথ হয়ে যাবে আর ব্রাজিলে সব কিছুই ভাল হচ্ছে না. কিন্তু যদি ধরে নেওয়া হয় যে, রাশিয়া ও ভারতের বেশ ভাল রকমেরই উন্নতি করার জায়গা রয়েছে, শুরু করার জন্য অবস্থানও ভাল, কম ঋণ ও কোন রকমের বিনিয়োগের বুদ্বুদ তৈরী হয় নি, তাহলে যদিও শিল্পের উন্নতি বিশ্বেই সম্ভবতঃ কমতে শুরু করতে পারে, সারা বিশ্বেই অচলাবস্থা হয়েছে বলে, তবুও আমি এখনই ব্রিক দেশ গুলির সঙ্গে উন্নতির গতিশীলতার প্রতিযোগিতায় নামতে পারে এমন কোন দেশ বা এলাকা দেখতে পাচ্ছি না. হ্যাঁ, তা কমতেই থাকবে. কিন্তু অন্যান্য দেশ গুলিতে উত্পাদনের উন্নতির হার আরও দ্রুত গতিতে কমবে. তাই আমি মনে করি যে, ব্রিকস রাষ্ট্রগুলিকে এখনই কবর দেওয়া যাবে না".

গোল্ডম্যান স্যাকস সংস্থার ভবিষ্যদ্বাণীতে প্রমাণ করা হয়েছে যে, ব্রিক বিশ্বের উন্নতির এঞ্জিন আর থাকবে না – যা এর আগে তারা ছিল. এই প্রসঙ্গে বিশ্বের উন্নতিতে এই ব্রিক জোটের দেশ গুলির সংযোজন আগামী চার দশকে প্রায় অর্ধেক কমে যাবে. কারণ হল – কাজের উপযুক্ত মানুষের সংখ্যা কমা. ম্যাক্সিম ব্রাতেরস্কি এই বিষয়ে মন্তব্য করে বলেছেন:

"এই মূল্যায়ণ খানিকটা জোর করে টেনেই করা হয়েছে. এখানে কথা হচ্ছে শুধু বাস্তব সংখ্যা তত্ত্বের কোন আনুপাতিক বিষয়ের নয়. অন্যান্য রিপোর্ট রয়েছে, যেখানে দেখানো হয়েছে ব্রিক দেশ গুলির জাতীয় বার্ষিক উত্পাদন বৃদ্ধির কথা. তাই আমি পরামর্শ দেবো গোল্ডম্যান স্যাকস সংস্থার রিপোর্টে বিশেষ মনোযোগ না দিতে".

রাশিয়ার বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যোগদান ও অন্যান্য সমাকলনের প্রকল্পে যোগ সাধন ব্রিক সংস্থার ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেছেন. কিন্তু এটা হতে পারে শুধু উত্পাদনকে বহুমুখী করা হলে ও কাঁচামাল সরবরাহের উপরে ভরসা করা উন্নয়নের অগ্রগতির মডেল থেকে সরে দাঁড়ালে, তাই ম্যাক্সিম ব্রাতেরস্কি বলেছেন:

"খুবই কষ্ট কল্পনা হয়ে যাবে যে, রাশিয়া কাঁচামালের দাম কমার সম্ভাবনা থাকা স্বত্ত্বেও উন্নতি দ্রুত করার গতি ধরে রাখতে পারবে. যদিও ইউরোপের চেয়ে তাও এই বৃদ্ধি বেশী হবে. বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থায় যোগদান – এটাও খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়. অন্য সব কিছু বাদ দিলেও, রাশিয়াকে বিশ্ব জোড়া শ্রমের বিভাজন সংক্রান্ত প্রযুক্তিগত শৃঙ্খলে সংযোজিত করবে. আরও গুরুত্বপূর্ণ হল ইউরোএশিয়া জোটের সামগ্রিক ক্ষেত্রের কাঠামো তৈরী. এটা এক বিপুল ক্ষমতা বিশিষ্ট হয়ে বিশাল অর্থনৈতিক গঠন হতে চলেছে".

গোল্ডম্যান স্যাক্স সংস্থার রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে যে, আগামী বছর গুলিতে বিনিয়োগকারীরা আরও সক্রিয়ভাবে ব্রিক (অথবা ব্রিকস – এখানে সেটা নীতিগত ভাবে গুরুত্বপূর্ণ নয়) দেশ গুলিতে মূলধন বিনিয়োগ করবেন. কারণ অর্থনীতিবিদেরা বলেছেন এটা ভরসাযোগ্য ও সম্ভাবনাময়.