বেশীর ভাগ রাশিয়ার লোক মনে করেন নববর্ষ পারিবারিক উত্সব, তা ঐতিহ্য মেনেই যে যার নিজের বাড়ীতেই পালন করবেন. এই বছরে উত্সবের খরচ গড়ে হাজার সাতেক রুবল (প্রায় ২৫০ ডলার) হবে বলে ধরা হয়েছে. রাশিয়ার জাতীয় মতামত পরিসংখ্যান কেন্দ্র ঐতিহ্য মেনেই প্রকাশ করেছে নববর্ষের পরিকল্পনা নিয়ে রিপোর্ট.

    কেন্দ্রের তরফ থেকে রাশিয়ার ৪৬টি এলাকা, রাজ্য ও প্রদেশে ১৬০০ লোকের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হয়েছিল তাঁদের নববর্ষ নিয়ে পরিকল্পনার কথা. এর মধ্যে একের তৃতীয়াংশ অঞ্চলে পুরনো বছর কে বিদায় জানিয়ে নতুন বছরের আবাহন করছেন আশান্বিত ভাবে. অর্ধেক লোকের কোন আলাদা করে আবেগ উদ্ভূত হয় নি, কোন বিরাগও নেই. নৈরাশ্যবাদী দেখা গেল শতকরা দশ শতাংশ মানুষ.

    বাড়ীতেই নববর্ষ কাটাবেন ঠিক করেছেন শতকরা ৭২ শতাংশ রুশ জনগন, অতিথি হিসাবে অন্যের কাছে যাবেন ১৬ ভাগ, এই কথা উল্লেখ করে পরিসংখ্যান কেন্দ্রের জেনেরাল ডিরেক্টর ভালেরি ফিওদরভ বলেছেন:

    আর অন্য সমস্ত রকমের উপায় – রেস্তোরাঁয়, ডিস্কো নাচের আসরে, গ্রামের বাড়ীতে, শহরের বাইরে, বিরাম নিবাসে ইত্যাদি – খুব বেশী হলে তিন শতাংশ লোক যাচ্ছেন. এমন লোকেরাও আছেন, যারা নববর্ষ পালন করেন না. এই অবাক করা লোকেদের সংখ্যা প্রত্যেক বারই পরিসংখ্যানে শতকরা দুই শতাংশ থাকে.

    প্রতি বছরের সঙ্গে রুশ লোকেদের নববর্ষের খরচ বেড়েই চলেছে, যা এখন গড়ে রুশ পরিবার খরচ করে থাকে, ভালেরি ফিওদরভ যোগ করেছেন:

    "গড়ে সাত হাজার রুবল এখন বলছেন মানুষ. ছয় বছর আগে খরচ ছিল এর অর্ধেক. এটার অর্থ কি? দাম কি বেড়েছে? নাকি লোকের সমৃদ্ধি বেড়েছে? প্রাথমিক মূল্যায়ণে, এই বছরে মুদ্রাস্ফীতি হবে প্রায় সাত শতাংশ, আর নতুন বছরের খরচ বাড়ছে – ১৩ শতাংশ. আর এটা আবারও শুধু লোকেদের ইচ্ছার কথা. আমরা নববর্ষ পালনের পরেও পরিসংখ্যান যোগাড় করি, প্রশ্ন করি: "আপনারা আসলে কত খরচ করেছেন?" আর সব সময়েই বোঝা যায় যে, খরচটা বেশী হয়েছে, যতটা ভাবা হয়েছিল তার থেকেও. তাই এখানে কথা শুধু মুদ্রাস্ফীতি নিয়েই হচ্ছে না, বরং সেই নিয়েও করা হচ্ছে, যাতে লোকে এই উত্সবকে যে বছরের সবচেয়ে প্রধান উত্সব বলেই মনে করে থাকেন, তা নিয়ে".

    সবচেয়ে বেশী খরচ করা হয়ে থাকে নববর্ষের উপহার আর নতুন বছরের রাতে খাবার টেবিল সাজানোর জন্য. সবচেয়ে জনপ্রিয় উপহার – স্যুভেনির, চকোলেট, খেলনা, সেন্ট, সাজার জিনিস আর নানা রকমের গয়না.

    ভাল খবর: যারা কিছুই কখনও উপহার দেন না, তাদের সংখ্যা কমছে – এই বছরে তাদের সংখ্যা মাত্র দশ শতাংশ. এই কথা সত্য যে, অনেক সময়েই পছন্দের সঙ্গে পাওয়া উপহার এক হয় না, তাই ভালেরি ফিওদরভ বলেছেন:

    "যেমন, স্যুভেনির পেতে চান মাত্র সাত শতাংশ লোক, আর তা উপহার দিয়ে থাকে শতকরা ৩১ শতাংশ. এর মানে হল, তারা যারা স্যুভেনির পাচ্ছেন, তাদের মধ্যে একের তৃতীয়াংশ মাত্র খুশী. আর সবচেয়ে চাওয়া উপহার তাহলে কি? টাকা. আরও একটা উপহার রয়েছে, যা সবাই পেতে চান, কিন্তু কেউই দিতে চান না – এটা মোটর গাড়ী".

    রাশিয়ার প্রায় একের তিন ভাগ লোক স্বীকার করেছেন যে অনেক সময়েই নববর্ষে পাওয়া উপহার অন্যদের উপহার হিসাবে দিয়ে দেন, যা তাদের দৈনন্দিন কাজে লাগবে না. আর মহিলারা এই কাজ ছেলেদের চেয়ে দ্বিগুণ বেশীই করে থাকেন.