১২৬টি ফাইটার বিমান কেনার জন্য ভারতের দ্বারা ঘোষিত প্রতিযোগিতা, যা অস্ত্র কেনার ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়সাপেক্ষ টেন্ডার, বানচাল হতে পারে বাজেটের সীমার জন্য. ভারতীয় পত্রপত্রিকা ১২৬টি ফাইটার বিমান সরবরাহের এ প্রতিযোগিতাকে “সমস্ত টেন্ডারের জননী” বলে অভিহিত করেছে, তবে নির্ধারিত সময়ে এ টেন্ডারের বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হয় নি. আগে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সেপ্টেম্বরে তা করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, তারপরে নভেম্বরে, আর তারপরে ডিসেম্বরে, লিখেছে রাশিয়ার “ভেদমস্তি” পত্রিকা. ভারত সরকারের এক উত্স জানিয়েছে যে টেন্ডারের বিজেতার নাম জানুয়ারী মাসে ঘোষণা করা হতে পারে. রাশিয়ার “রসআবারোনএক্সপোর্ত” সংগঠনের নেতৃবৃন্দের ঘনিষ্ঠ এক উত্স “ভেদোমস্তি” পত্রিকাকে বলেছেন যে, ভারতীয়রা প্রতিযোগিতার ফলাফল এ বছরে ঘোষণা করবে না, যেমন আগে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল, আর হয়ত, এ টেন্ডার একেবারে বাতিল করা হবে. এ ব্যাপারে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির মন্তব্য পাওয়া সম্ভব হয় নি. এই “দ্য ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্স মিডিয়াম মাল্টি-রোল কম্ব্যাট এয়ারক্রাফ্ট কম্পিটিশন” নামে টেন্ডার ঘোষণা করা হয়েছিল ২০০৬ সালে. তা অনুযায়ী প্রায় এক হাজার কোটি ডলারে ১২৬টি ফাইটার বিমান কেনার কথা ছিল, কিন্তু ২০১১ সালের নভেম্বরে তার মূল্য বেড়ে যায় দুই হাজার কোটি ডলার পর্যন্ত. টেন্ডারে অংশগ্রহণ করেছিল পৃথিবীর প্রায় সমস্ত ফাইটার বিমান উত্পাদনকারী – মার্কিনী “এফ-১৬” এবং “এফ-১৮”, সুইডেনের “গ্রিপেন”, রাশিয়ার “মিগ-৩৫”, ইউরোপের “ইউরো-ফাইটার টাইফুন” এবং ফরাসী “রাফেল”. মে মাসে ভারতের বিমান বাহিনী ঘোষণা করে যে, ফাইনালে উঠেছে “ইউরো-ফাইটার টাইফুন” এবং “রাফেল”.