আমেরিকার অর্থমন্ত্রক আবার কংগ্রেসে প্রদত্ত রিপোর্টে গত কয়েকমাসে মার্কিনী ডলারের অনুপাতে চীনের ইউয়ানের দর বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করেছে এবং আবার চীনকে মুদ্রার কারসাজির অভিযোগে অভিযুক্ত করেনি. নিউ ইয়র্ক টাইমস স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে, যে মার্কিনী অর্থমন্ত্রক প্রতি ৬ মাসে একবার তাদের বাণিজ্যিক শরিকদের মুদ্রানীতি বিষয়ে কংগ্রেসের কাছে রিপোর্ট দাখিল করে. ঐ রিপোর্টে পৃথক কোনো দেশ মুদ্রা বিনিময়ের হার অদলবদল করে বৈদেশিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে কৃত্রিমভাবে কোনো বিশেষ সুবিধা গ্রহণ করছে কিনা, তার মূল্যায়ণ করা হয়. এবারের রিপোর্টে অর্থমন্ত্রক উল্লেখ করেছে, যে গত দেড় বছরে চীনের ইউয়ানের দর ডলারের অনুপাতে ১২ শতাংশ বেড়েছে. অর্থমন্ত্রক আরও উল্লেখ করেছে, যে বেইজিং দুইবার তার জাতীয় মুদ্রাকে নমনীয় করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেছিল. একই সঙ্গে অর্থমন্ত্রক আবার বলেছে, যে ইউয়ানের বিনিময় হার যথেষ্ট নীচু, এবং এই অভিমুখে আরো নতুন নতুন পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন.