সমস্ত কিছুই করা দরকার যাতে আগামী রাষ্ট্রপতি নির্বাচন হয় স্বচ্ছ, বোধগম্য ও নিরপেক্ষ ভাবে. এই প্রসঙ্গে রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেছেন সমগ্র রুশ জনগনের ফ্রন্টের বৈঠকে, কারণ তিনি নিজেই ২০১২ সালের নির্বাচনে প্রার্থী হিসাবে মনোনয়ন পেয়েছেন. তিনি সামাজিক সংস্থা গুলির প্রতিনিধিদের কাছে গ্রহ প্রকাশ করে প্রশ্ন করেছেন, আর কি করা দরকার যাতে নির্বাচনের ফল নিয়ে কোন রকমের সন্দেহের উদয় না হয়, আর প্রস্তাব করেছেন এই বিষয়ে ইন্টারনেটে আলোচনা করার.

    প্রধানমন্ত্রীর কথামতো, নির্বাচনের স্বচ্ছতা বাড়ানোর জন্য সমস্ত গঠন মূলক প্রস্তাব নিয়েই আলোচনা করার দরকার রয়েছে. এর আগে ভ্লাদিমির পুতিন প্রস্তাব করেছিলেন সমস্ত ভোট গ্রহণ কেন্দ্রে ওয়েব ক্যামেরা লাগানোর জন্য. সামাজিক কর্মীদের সঙ্গে সাক্ষাত্কারের সময়ে তিনি প্রস্তাব করেছেন, যাতে এই সব ক্যামেরা সারা দিন রাত ধরেই কাজ করে ও তা যেমন ভোট গ্রহণ কেন্দ্রে, তেমনই ভোট গণনার সময়েও. তিনি একই সঙ্গে সমস্ত পার্লামেন্টে উপস্থিতি রাজনৈতিক দলকে আহ্বান করেছেন, দেশের প্রধান নির্বাচনের প্রক্রিয়ার নিয়ন্ত্রণে অংশ নেওয়ার জন্য.

    এই ভাবেই, ভ্লাদিমির পুতিনের মতে নির্বাচন আইন সঙ্গত নয় বলার সমস্ত চেষ্টাকে প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে, যা দেশের কিছু শক্তি আজ চেষ্টা করছে করার, তিনি বলেছেন:

    "যখন আমি বলি যে, নির্বাচনী প্রক্রিয়াকে স্বচ্ছ করার ব্যবস্থা করা হোক, তখন আমি মনোযোগ আকর্ষণ করতে চাই যে, এই স্বচ্ছতা সবার আগে আমার আপনাদেরই দরকার. কারণ আমরা আশ্বস্ত হতে চাই যে, আমাদের দেশের জনগন সত্যই আমাদের সমর্থন করেন. এটা নীতিগত প্রশ্ন, কারণ মানুষের সমর্থন ছাড়া বৃহত্তর পরিকল্পনা বাস্তবায়িত করা সম্ভব নয়".

    যোগাযোগ ও টেলি যোগাযোগ মন্ত্রী ইগর শ্যেগলেভ ব্যাখ্যা করেছেন ভোট গ্রহণ কেন্দ্র গুলি ওয়েব ক্যামেরা দিয়ে সজ্জিত করার কাজ কি রকম চলছে. এর মধ্যেই সমস্ত রকমের প্রযুক্তি প্রয়োজনীয় দলিল তৈরী হয়ে গিয়েছে. এখন কথা হচ্ছে প্রায় দুই লক্ষ ক্যামেরা লাগানোর, এটা শুধু রাশিয়ার জন্যই নয়, বরং বিশ্বের অনুপাতেই অন্যতম প্রকল্প. বিশ্বে এমন একটি ইন্টারনেট ব্যবস্থা নেই, যেখানে একই সঙ্গে দুই লক্ষ ক্যামেরায় তোলা ছবি ইন্টারনেটে দেখানো সম্ভব হয়েছে. তিনি এই প্রসঙ্গে বলেছেন:

    "এখানে কাজ হল কি করে আমাদের দেশের বহু সহস্র লোককে একই সঙ্গে নির্বাচনের দিনে দেশের যে কোন নির্বাচনী কেন্দ্রে ইন্টারনেটের সাহায্যে পৌঁছনো সম্ভব হয়. অবশ্যই এটা যেহেতু কোনও সস্তা সমাধান নয়, আমাদের দেশের আয়তন ও জটিলতার কথা চিন্তা করলে, তাই আমরা ভাবতে বাধ্য, কি করে এই ব্যবস্থাকে পরবর্তী কালে উপযুক্ত ভাবে ব্যবহার করা সম্ভব হয়".

    এই কাজের দাম – ১ হাজার চারশো কোটি রুবল. ভ্লাদিমির পুতিনের প্রাক্ নির্বাচনী কার্যালয়ের প্রধান চিত্র পরিচালক স্তানিস্লাভ গাভারুখিন উল্লেখ করেছেন যে, এই অর্থ বিপুল. "অবশ্যই এত অর্থ খরচে খারাপ লাগছে, কিন্তু প্রশ্ন, যা আমরা সমাধান করতে চলেছি: কি করে কম করে হলেও নির্বাচনকে প্রহসনে পরিনত হতে না দেওয়া যায়", উল্লেখ করেছেন উত্তর দিতে গিয়ে পুতিন.

    মনে করিয়ে দিই যে, ৪ঠা ডিসেম্বরে পার্লামেন্ট নির্বাচনের পরে মস্কো ও অন্যান্য বড় শহরে নির্বাচনের ফলের সঙ্গে একমত না হওয়া বিরোধীদের মিটিং হয়েছে. সবচেয়ে বেশী সংখ্যক লোকের সমাবেশ হয়েছে রাজধানীতে. বালোতনায়া স্কোয়ারে ও সাখারোভ প্রসপেক্টে বিভিন্ন উত্সের খবর অনুযায়ী ৩০ হাজার থেকে ১ লক্ষ ২০ হাজার লোক এসেছিলেন. তাঁদের দাবী ছিল- নির্বাচনের ফল বাতিল করা ও নতুন করে নির্বাচনের.

    ভ্লাদিমির পুতিন উল্লেখ করেছেন যে, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রার্থী হিসাবে তাঁর কোন রকমের কারচুপির প্রয়োজন নেই. প্রধানমন্ত্রী প্রসঙ্গ শেষ করেছেন এই বলে যে, আমি নিজেই চাই, যাতে নির্বাচন সবচেয়ে স্বচ্ছ হয়, আমাদের উচিত্ হবে সামর্থ্য প্রয়োগ করে সমস্ত প্রশ্নের সমাধান করার.