পাকিস্তানের কর্তৃপক্ষ পাকিস্তানী সৈনিকদের উপর ন্যাটো জোটের বিমান আঘাতের তদন্তের ফলাফলের সাথে একমত নয়, যে তদন্ত চালিয়েছিল উত্তর অ্যাটলান্টিক জোট এবং পেন্টাগন. পাকিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে, মার্কিনী পক্ষের সিদ্ধান্ত যথেষ্ট মাত্রায় বাস্তব ঘটনার দ্বারা সমর্থিত নয়. তদন্তের ফলাফলের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার পশ্চিমী সমরসেবীরা ঘোষণা করেছে যে, ঘটনাটি ঘটেছে “উভয় পক্ষের ভুলে, ক্রিয়াকলাপের সঙ্গতি সাধন এবং স্থান নির্ধারণে ভুলের দরুণ”. ইস্লামাবাদে জোর দিয়ে বলা হয়েছে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোটের রিপোর্টের পূর্ণ বয়ান অধ্যয়ন করার পরেই এ বিষয়ে আরও বিশদ মন্তব্য করা হবে. নভেম্বরের শেষ দিকে ন্যাটো জোটের হেলিকপ্টার আফগান সীমানার কাছে অবস্থিত পাকিস্তানী প্রহরা-চৌকির উপর আঘাত হানে. ফলে অন্ততপক্ষে ২৪ জন সৈনিক নিহত হয়. এ ঘটনাটি ওয়াশিংটন ও ইস্লামাবাদের মাঝে এমনিতেই খারাপ হয়ে ওঠা সম্পর্ককে আরও তীব্র করে তুলেছে. পাকিস্তান আফগানিস্তানে ন্যাটো বাহিনীর জন্য পাকিস্তানের ভূভাগ হয়ে মালপত্র পাঠানোর যাত্রাপথ বন্ধ করেছে এবং ঘোষণা করেছে যে,রাজনৈতিক ও সামরিক ক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোটের সাথে সম্পাদিত সমস্ত চুক্তি পুনর্বিচার করতে চায়.