আর্মেনীয়দের জাতিহত্যা অস্বীকারের ঘটনাকে অপরাধ বলে স্বীকার করা  আইনের খসড়া অনুমোদন সংক্রান্ত ফ্রান্সের পার্লামেন্টের নিম্ন কক্ষের সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রেজেপ তাইপ এর্দোগান. তিনি বলেন যে, এদলিলটির “ভিত্তিতে রয়েছে বর্ণবৈষম্যবাদ, বৈষম্য ও জাতিভেদ”, জানিয়েছে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ এজেন্সি. তিনি যোগ করে বলেন, ফরাসী পার্লামেন্টের দ্বারা এ আইনের খসড়ার গ্রহণ “আমাদের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে অতি গুরুতর অপুরণীয় পরিণতি নিয়ে আসতে পারে”. এ সিদ্ধান্তের উত্তরে তুরস্কের গণ-প্রতিনিধিরা ফ্রান্সের সাথে সমস্ত সামরিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক আলাপ-আলোচনা বাতিল করছে. তাছাড়া ফরাসী সামরিক বিমানের তুরস্কে নামা নিষেধ করা হয়েছে, আর ফ্রান্সের নৌবাহিনীর জাহাজগুলি তুরস্কের বন্দরে ঢুকতে পারবে না. তাছাড়া তুরস্কের পক্ষ ফ্রান্সের সাথে মিলিত সামরিক মহড়া চালাতেও অস্বীকার করছে. এ ছাড়াও প্যারিসে তুরস্কের রাষ্ট্রদূতকে পরামর্শের জন্য আঙ্কারায় ডেকে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে. বৃহস্পতিবার ফ্রান্সের জাতীয় সভার প্রতিনিধিরা আর্মেনীয়দের জাতিহত্যা অস্বীকারকে ফৌজদারী অপরাধ বলে বিবেচনা করা সংক্রান্ত আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে. এখন এ আইনের খসড়া সেনেটে আলোচনার জন্য পেশ করা হবে. আশা করা হচ্ছে যে, এ ব্যাপারে ভোটদান হবে ২০১২ সালে. ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যালেন ঝুপ্পে এ আইনের খসড়াকে “অনুপকারী ও অফলপ্রদ” বলে অভিহিত করেছেন.