রুশ-ভারত স্ট্র্যাটেজিক শরিকানার সুদৃঢ়করণ, নবায়ন ও উচ্চ-প্রাকৌশলিক ক্ষেত্রে বিনিয়োগী সম্পর্কের বিকাশ, পারমাণবিক বিদ্যুত্শক্তি, নিকট প্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার পরিস্থিতি সম্পর্কে মত বিনিময় – ভারতের প্রধানমন্ত্রী শ্রীমনমোহন সিংয়ের সাথে রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি দমিত্রি মেদভেদেভের সাক্ষাতে মুখ্য আলোচ্য বিষয়. এ সম্বন্ধে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন রাশিয়ার রাষ্ট্রপতির সহকারী সের্গেই প্রিখোদকো. মস্কোয় নিজের সরকারী সফরের সময় শ্রীমনমোহন সিং রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ভ্লাদিমির পুতিনের সাথেও সাক্ষাত্ করবেন. রাশিয়ার “কমের্সান্ত” পত্রিকার সংবাদদাতাকে রাশিয়ায় ভারতের রাষ্ট্রদূত শ্রীঅজয় মালহোত্রা বলেন, আশা করা হচ্ছে যে, কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে, যা রুশ-ভারত শরিকানার বনিয়াদ প্রসার করবে. তাছাড়া, দু দেশের নেতারা রুশ-ভারত কারবারী পরিষদের প্রতিনিধিদের সাথে সাক্ষাত্ করবেন এবং বাণিজ্যিক ও বিনিয়োগী সহযোগিতা প্রসারের পথ আলোচনা করবেন. শ্রীমালহোত্রা মনে করিয়ে দেন যে, ২০০০ সালে স্ট্র্যাটেজিক শরিকানা সংক্রান্ত ঘোষণাপত্র স্বাক্ষরের পরে রাশিয়া ও ভারত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে প্রভাবব্যঞ্জক রূপান্তর অর্জন করেছে. তার প্রমাণ হিসেবে উল্লেখ করা যেতে পারে সামরিক-প্রযুক্তিগত সহযোগিতা, মহাকাশ, পারমাণবিক বিদ্যুত্শক্তি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে মিলিত প্রকল্পগুলির কথা. রাষ্ট্রদূত জোর দিয়ে বলেন যে, ভারতের সশস্ত্র বাহিনী রাশিয়ায় উত্পাদিত অস্ত্রশস্ত্র বিপুল পরিমাণে ব্যবহার করে. বর্তমান মুহূর্তে ৪২টি “সু-৩০এম.কা.ই” মার্কা ফাইটার বিমানের নতুন ক্ষেপ কেনা সংক্রান্ত প্রটোকল নিয়ে কাজ শেষ হতে চলেছে.