পারমাণবিক ক্ষেত্রে রুশ-ভারত সহযোগিতা ক্রমানুবর্তিত হবে, রাশিয়ার সাংবাদিকদের বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শ্রী মনমোহন সিং মস্কো সফরের আগে. কুদানকুলাম পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্র চালু করার বিরুদ্ধে জনসাধারণের প্রতিবাদ এ ক্ষেত্রে বড় পরিসরের ভারতীয় পারমাণবিক বিদ্যুত্শক্তির কর্মসূচি বাস্তবায়নে এবং এ ক্ষেত্রে রুশ-ভারত পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বাধা দেবে কি না, এ প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন যে, ভারত রাশিয়ার প্রতি নিজের সমস্ত বাধ্যবাধকতা পালন করবে. সংবাদ এজেন্সি “ইন্টারফাক্স” মনে করিয়ে দিচ্ছে যে, শ্রী মনমোহন সিং রাশিয়ায় সরকারী সফরে থাকবেন ১৫-১৭ই ডিসেম্বর. পারমাণবিক শিল্পের ক্ষেত্রে সহযোগিতা এ সফরের কাঠামোতে আলোচনার একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হবে. “কুদানকুলাম” পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রের দ্বিতীয় পর্যায়ের নির্মাণ সংক্রান্ত চুক্তি রাশিয়া ও ভারত স্বাক্ষর করেছিল ২০১০ সালে. বর্তমানে রাশিয়া এ কেন্দ্রের প্রথম অংশের নির্মাণ শেষ করছে. “কুদানকুলাম” পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রের প্রথম ব্লক চালু করার কথা ছিল এ বছর শেষ হওয়ার আগে, কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দাদের প্রতিবাদের জন্য তা মুলতুবি রাখা হয়েছে. শ্রী সিং বলেন, “কুদানকুলামে প্রতিবাদ পারমাণবিক শক্তির নিরাপত্তা সম্পর্কে জনসাধারণের দুশ্চিন্তাই প্রতিফলিত করে”, বিশেষ করে, পরিবেশ সংরক্ষণের ক্ষেত্রে. তাছাড়া, তিনি উল্লেখ করেন যে, লোকে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত এ বিষয়েও যে, কেন্দ্র চালু হলে তাদের আয় কমে যেতে পারে. ভারতের পারমাণবিক শিল্পের বিকাশ ও গড়ে ওঠায় রাশিয়ার ভূমিকার কথায় এসে শ্রী সিং বলেন : “রাশিয়াকে আমরা সর্বদা বিবেচনা করে এসেছি এমন শরিক হিসেবে, যে আমাদের পাশে ছিল কঠিন সময়ে, এমনকি যখন ভারতের সাথে পারমাণবিক ক্ষেত্রে বাণিজ্য সীমিত ছিল, তখনও”. তিনি বলেন, “রাশিয়ার সমস্ত বিশেষজ্ঞকে ধন্যবাদ জানাতে চাই, যাঁরা “কুদানকুলাম” প্রকল্পে আমাদের সাথে কাজ করছেন”.