ভারতের পূর্বাঞ্চলে ভেজাল মদ্যপান করে এখনো পর্যন্ত ১০৭ জন মারা গেছে. দুর্ঘটনা ঘটেছে কোলকাতার ৩০ কি.মি. দূরত্বে সংগ্রামপুর গ্রামে. স্থানীয় চিকিত্সাবিদদের মতে মৃত্যুর কারন মেথিলেটেড স্পিরিট. মৃতদের মধ্যে অধিকাংশই কৃষক, শ্রমিক ও রিক্সাওয়ালা. মৃতের সংখ্যা ক্রমাগতঃ বাড়ছে. কোলকাতায় প্রায় ৫০ জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, তাদের মধ্যে মৃতের সংখ্যা প্রতিনিয়ত বাড়ছে. ভেজাল মদ্য বিক্রয়ের অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে. যে বাড়ি থেকে মদ বিক্রয় করা হয়েছিল, ক্রুদ্ধ জনতা সেই বাড়িটিতে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে. পশ্চিম বঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী ঘোষণা করেছেন, যে রাজ্য সরকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করছে, তিনি স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে ভেজাল মদের বিরূদ্ধে সংগ্রামে সহায়তা করার অনুরোধ জানিয়েছেন. গত কয়েকবছরে ভারতে একাধিকবার ভেজাল মদ্যপান করে বহু লোক মারা গেছে. ২০০৯ সালে গুজরাট রাজ্যে চোলাই পান করে ১২২ জন মারা যায়, ২০০৮ সালে তামিলনাড়ু ও অন্ধ্র প্রদেশে ঐ একই কারনে ১৭০ জন মারা যায়.