সুইজারল্যান্ডের আদালতে তিনজন নাগরিকের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেশ করা হয়েছে পাকিস্তানী বিজ্ঞানী আব্দুল কাদির খানের গ্রুপের কার্যকলাপে জড়িত থাকায়. অনুমান করা হচ্ছে যে, এ পাকিস্তানী গ্রুপ ইরান, উত্তর কোরিয়া ও লিবিয়াকে পারমাণবিক প্রকৌশল হস্তান্তর করেছিল. সুইজারল্যান্ডের অভিশংসক দপ্তরের উদ্ধৃতি দিয়ে এ সম্বন্ধে জানিয়েছে “রয়টার” সংবাদ এজেন্সি. অভিযুক্তরা – পিতা ও তার দুই পুত্র – ইঞ্জিনিয়ার, যারা আগে ইউরেনিয়াম পরিশোধনের জন্য সেন্ট্রিফিউজে কাজ করত. সুইস প্রচার মাধ্যম উল্লেখ করেছে যে, তাদের বন্ধুত্ব ছিল আব্দুল কাদির খানের সাথে. পারমাণবিক অস্ত্র প্রসার নিরোধের চুক্তির ধারা অনুযায়ী, সুইজারল্যান্ডের পারমাণবিক অস্ত্র সংক্রান্ত দলিল রাখার অধিকার নেই. ২০০৪ সালে এ তথ্য উদ্ঘাটিত হয়েছিল যে, কাদির খান পারমাণবিক প্রকৌশলের বিশ্ব “কালোবাজারের” সাথে যোগাযোগ স্থাপন করেছিল এবং এ ক্ষেত্রে লিবিয়া, ইরান ও উত্তর কোরিয়ার সাথে সহযোগিতা করেছিল. শেষোক্ত দুটি দেশের বিরুদ্ধে পশ্চিমী দেশগুলি অভিযোগ তুলছে পারমাণবিক অস্ত্র প্রসার নিরোধের চুক্তি এড়িয়ে পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করার. পারমাণবিক অস্ত্র প্রসার নিরোধের চুক্তি অনুযায়ী, রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচটি স্থায়ী সদস্য দেশ –রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, চীন, গ্রেট-বৃটেন ও ফ্রান্সকে পারমাণবিক অস্ত্রাধিকারী দেশ হিসেবে বিবেচনা করা হয়.