মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা ইরানের শাসক কর্তৃপক্ষের কাছে তেহেরানের খপ্পরে পড়া মার্কিনী চালকবিহীন গুপ্তচর ড্রোনটি ফেরত দেবার অনুরোধ জানিয়েছেন. বি.বি.সি. জানাচ্ছে, যে ওবামা তার আবেদনপত্র সম্পর্কে বিষদে কিছু জানাননি. অন্যদিকে আমেরিকার বিদেশ সচিব হিলারি ক্লিনটন স্বীকার করেছেন, যে ইরান বিমানটি ফেরত দিতে পারে – এরকম সম্ভাবনায় তিনি প্রায় বিশ্বাস করেন না. তেহেরান জাতিসংঘের কাছে একটা চিঠি পাঠিয়েছে, যেখানে তার ভূখন্ডে আমেরিকা কতৃক প্ররোচনামুলক ও গোপন কর্মকান্ড চালানোর অভিযোগ হেনেছে, যা আন্তর্জাতিক আইনের পরিপন্থী.

      ইরানের সামরিক কর্মীরা বলছে, যে তারা নাকি ইলেকট্রনিক যন্ত্রের মাধ্যমে বিমানটিকে মাটিতে নামিয়েছে. পেন্টাগন সেটা মেনে নিতে অস্বীকার করছে, তাদের বক্তব্য হল – চালকবিহীন ড্রোনটি বিকল হয়ে গেছিল. ইরান চালকবিহীন ড্রোন তৈরির প্রযুক্তি হাতে পেতে পারে অথবা তৃতীয় কোনো দেশকে বিক্রি করে দিতে পারে মনে করে আমেরিকা যারপরোনাই উদ্বিগ্ন. ইতিপূর্বে রাশিয়া ও চীন ড্রোনটিকে পর্যবেক্ষণ করার ইচ্ছাপ্রকাশ করেছিল. ড্রোন বিমানটি এই মাসের শুরুতে আফগানিস্তান সীমান্তের কাছে ইরানের ভূখন্ডে ভূপাতিত হয়.