ষষ্ঠ লোকসভা নির্বাচনে মস্কো শহরের সমস্ত ভোট গ্রহণ কেন্দ্রের কাজ আজ রবিবারে স্থানীয় সময় রাত ৮টার সময়ে শেষ হয়েছে. সন্ধ্যা ছটার সময়ে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী ভোট দিতে এসেছিলেন শতকরা ৫০, ০৩ শতাংশ ভোটার. মস্কো শহরের নির্বাচন পরিষদে উল্লেখ করা হয়েছে যে, এটা ২০০৭ সালের লোকসভা নির্বাচনের চেয়ে শতকরা ১, ৩ শতাংশ কম, তখন ছিল ৫১, ৩৩ শতাংশ ও ২০০৩ সালে ৫০, ৯৯ শতাংশ.

    নির্বাচনে সন্ধ্যা ছটার সময়ে সবচেয়ে বেশী লোক ভোট দিতে এসেছিলেন মস্কোর সকোলনিকি এলাকায়, সেখানে শতকরা ৬৫, ০৭ শতাংশ ভোটার কেন্দ্রে এসেছিলেন ভোট দিতে. দ্বিতীয় স্থানে ছিল মেট্রোগোরোদক এলাকা, সেখানে এসেছিলেন শতকরা ৬৩, ৭ শতাংশ ভোটার আর উত্তর চেরতানোভা এলাকায় ৬৩, ১২ শতাংশ ভোটার এসেছিলেন ভোট দিতে, তাই এই এলাকা তালিকায় তৃতীয়. সবচেয়ে কম ভোট পড়েছে নোভো পিরিদেলকিনো (৪১, ৩৯ শতাংশ) ও রামেনকি (৪১, ৫৯ শতাংশ) এলাকায়.

    মস্কোর নির্বাচন পরিষদের প্রধান ভালেন্তিন গর্বুনভ বলেছেন যে, ভোট চলার সময়ে খবর এসেছিল যে, কিছু কেন্দ্রে ভোট সংক্রান্ত আইন লঙ্ঘণ ঘটেছে, তাই এই তথ্য পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে. এই প্রথমবার রাজধানীতে নতুন প্রজন্মের বৈদ্যুতিন ব্যালট গণনার যন্ত্র ব্যবস্থা ব্যবহার করা হয়েছে.

    প্রায় এক লক্ষ মানু, তাদের মধ্যে সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা, যাঁরা এবারের নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন, তাঁরা পর্যবেক্ষক হিসাবে ছিলেন মস্কো শহরের ভোট গ্রহণ কেন্দ্র গুলিতে. তাঁদের সঙ্গে বিদেশ থেকে বিশেষত ইউরোপীয় নিরাপত্তা সংস্থা, ইউরোপীয় সঙ্ঘ, ইউরোপীয় পার্লামেন্ট পরিষদের প্রতিনিধি দল ও স্বাধীন রাষ্ট্র সমূহের সংস্থার প্রতিনিধি দল ও উপস্থিত ছিলেন.

মস্কো শহরের বেশীর ভাগ ভোট গ্রহণ কেন্দ্রই ছিল বিভিন্ন স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে – দুই হাজার আটশরও বেশী, আর প্রতিবন্ধীদের জন্য দেড়শটিরও বেশী কেন্দ্রে বিশেষ সহায়তার বন্দোবস্ত করা হয়েছিল, আলাদা ভোট দেওয়ার বুথ খোলা হয়েছিল.

রাজধানীর নির্বাচন পরিষদের তথ্য অনুযায়ী, ৩ হাজার ৩৭৪ ভোট গ্রহণ কেন্দ্রের মধ্যে ৩ হাজার একশরও বেশী ছিল মস্কোর বাসিন্দাদের বাসস্থান নির্ভর, আর ২১০টি – অস্থায়ী ভাবে ভোটার দের থাকার সম্ভাবনার কথা ভেবে. অংশতঃ ১২৪টি ভোট গ্রহণ কেন্দ্র কাজ করেছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কেন্দ্রে, ১৮৭টি বিভিন্ন ধরনের চিকিত্সা সংক্রান্ত ভবনে, ১০টি ছাত্রদের হোস্টেলে, ১১টি সাময়িক ভাবে বন্দীদের রাখার জেলে, আর ৭৭টি অন্যান্য অফিসে, তার মধ্যে আটটি রেল স্টেশনে ও "ভনুকোভা" বিমান বন্দরে ও চারটি সামাজিক কেন্দ্রে.

যাঁদের বাসস্থানে নাম নথিভুক্ত নেই, সেই সমস্ত রুশ জনগনের ভোট দানের জন্য ৯১৫২ নম্বর ভোট গ্রহণ কেন্দ্র খোলা হয়েছিল সাত নম্বর নিকিতস্কি পিরিউলকের কেন্দ্রীয় ডাকঘর ভবনের এক নম্বর বাড়ীতে. এখানে রবিবারে বিরাট লাইন পড়েছিল, কারণ সেখানে ভোট দিতে এসেছিলেন রাশিয়ার বিভিন্ন জায়গার বহু মানুষ, যাঁরা রাশিয়ার অন্যান্য জায়গায় নথিভুক্ত, কিন্তু নানা কারণে ভোট দানের জন্য বিশেষ ধরনের ছাড়পত্র আগে থেকে নেন নি. তাঁদের ভোট এখানে দিতে অস্বীকার করা হয়েছে, এই খবর দিয়েছেন মস্কো নির্বাচন পরিষদের প্রধান ভালেন্তিন গর্বুনভ.