0পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ রজা গিলানী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সতর্ক করে দিয়েছেন যে, দু দেশের মাঝে সম্পর্ক বর্তমানের ধারায় আর চলতে পারে না. গিলানী জোর দিয়ে বলেন যে, ন্যাটো বাহিনীর দ্বারা পাকিস্তানী সৈনিকদের হত্যা, এবং তাছাড়া পাকিস্তানের ভূভাগে স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সম্মতি ছাড়া মার্কিনী বিশেষ বাহিনীর দ্বারা উসামা বিন লাদেনকে ধ্বংস করা দেশের সার্বভৌমত্ব লঙ্ঘন করে. প্রধানমন্ত্রীর কথায়, পাকিস্তান আফগানিস্তান সম্পর্কে সম্মেলন বয়কট করতে পারে, যা জার্মানির বন শহরে অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা. আফগানিস্তান, নিজের তরফ থেকে, ইস্লামাবাদকে আহ্বান জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে মোকাবিলার পথ গ্রহণ না করার, জানিয়েছে মার্কিনী “সি.এন.এন” টেলি-কোম্পানি. পাকিস্তানী সরকারের প্রতিনিধি এ টেলি-কোম্পানিকে বলেছেন যে, পাকিস্তান, যার মারফত ন্যাটো জোট এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বেশির ভাগ মালপত্র আফগানিস্তানে যায়, ইতিমধ্যে ৩০০ ট্রাককে ফেরত পাঠিয়েছে, যা মালপত্র ও জ্বালানী নিয়ে আফগানিস্তানে যাচ্ছিল. আগে জানানো হয়েছিল যে, শনিবার ন্যাটো জোটের হেলিকপ্টার পাক-আফগান সীমানার কাছে পাকিস্তানী প্রহরা-চৌকির উপর আঘাত হেনেছিল. এ আক্রমণের ফলে, পাকিস্তানী বাহিনীর ২৪ জন সৈনিক নিহত হয়েছে. উল্লেখযোগ্য বিষয় হল এই যে, ন্যাটো বাহিনী প্রহরা চৌকির উপর গুলিবর্ষণ বন্ধ করে নি, এমনকি পাকিস্তানের তরফ থেকে এ খবর পাওয়ার পরেও যে, তারা “মিত্রশক্তির” উপর অগ্নিবর্ষণ করছে. জোটের প্রতিনিধিরা “অনিচ্ছাকৃত বিপর্যয়কর ঘটনার” জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেছে, তবে ইস্লামাবাদে উত্তর দেওয়া হয়েছে যে, উক্ত ক্ষেত্রে শুধু ক্ষমা প্রার্থনাই যথেষ্ট নয়.