সিরিয়ার নিরাপত্তা বাহিনী দেশে ব্যাপক বিশৃঙ্খলা দমনের সময় “মানবজাতির বিরুদ্ধে একসারি অপরাধ” করেছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের রিপোর্টে, যা সোমবার জেনেভায় সাংবাদিক সম্মেলনে পেশ করা হয়েছে. এ রিপোর্ট অনুযায়ী, সশস্ত্র বাহিনী ও পুলিশের প্রতিনিধিরা সরকারবিরোধী মিছিল দমনের সময় লোকেদের হত্যা করেছে এবং নির্যাতন করেছে. সিরিয়ার কর্তৃপক্ষের উপর মানবজাতির বিরুদ্ধে অপরাধের দায়িত্ব আরোপিত হয়েছে, যে অপরাধ সাধন করেছে সৈন্যবাহিনী ও কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধিরা মিছিল দমনের সময়, ঘোষণা করেছেন রিপোর্টের রচয়িতারা.                      সিরিয়ায় পরিস্থিতির তদন্ত সংক্রান্ত কমিশন ২২০ জনেরও বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এবং বিশৃঙ্খলার প্রত্যক্ষদর্শীর, সেই সঙ্গে সৈন্যবাহিনী ছেড়ে যাওয়া ব্যক্তির সাক্ষ্য গ্রহণ করেছে, জানিয়েছে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ সংস্থা. রাষ্ট্রসঙ্ঘ সিরিয়ার কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানিয়েছে দেশে মানব অধিকার লঙ্ঘন বন্ধ করার, রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্ত করার এবং দেশে সাংবাদিক ও পর্যবেক্ষকদের যেতে দেওয়ার. রাষ্ট্রসঙ্ঘের তথ্য অনুযায়ী, সিরিয়ায় এ বছরের মার্চে শুরু হওয়া বিশৃঙ্খলার গতিতে নিহত হয়েছে সাড়ে তিন হাজার জন. সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ ঘোষণা করছে যে, সংগ্রাম করছে “বিদেশ থেকে সমর্থিত সশস্ত্র দলের” বিরুদ্ধে, শান্তিপূর্ণ মিছিলকারীদের বিরুদ্ধে নয়.