পাকিস্তান সোমবার এ খবর অস্বীকার করেছে যে, পাকিস্তানী সৈনিকরা প্রথম অগ্নিবর্ষণ করেছে, যা আফগান- পাক সীমান্তে ন্যাটো বাহিনীর আঘাত প্ররোচিত করেছে. জানানো হয়েছিল যে, শনিবার ন্যাটো জোটের হেলিকপ্টার আক্রমণের ফলে ২৪ জন পাকিস্তানী সামরিক কর্মচারী নিহত হয়েছে. পাকিস্তানের সামরিক অধিনায়কমন্ডলীর প্রতিনিধি আখতার আব্বাস বলেন যে, খবরটি সত্য নয়, আর ন্যাটো পক্ষের কাছে কোনো প্রমাণ যা এ কথা প্রমাণ করতে পারে, জানিয়েছে “ফ্রান্স প্রেস” সংবাদ এজেন্সি. মার্কিনী “দ্য ওয়াল স্ট্রীট জার্নাল” আফগান ও পশ্চিমী উত্স উদ্ধৃত করে জানিয়েছে যে, আফগান বাহিনী এবং ন্যাটো বাহিনীর আঘাত নির্দেশিত ছিল পাকিস্তানী ভূভাগে অবস্থিত “তালিবান” শক্তির বিরুদ্ধে. পত্রিকাটির তথ্য অনুযায়ী, আক্রমণ চালানো হয়েছিল পাকিস্তানের উপজাতি এলাকার মোহমান্দ অঞ্চল থেকে গুলি বর্ষণের পরে. ওয়াশিংটনে স্থিরবিশ্বাস প্রকাশিত হচ্ছে যে, এ এলাকাটি “আল-কাইদার” একটি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র. তবে, উচ্চপদস্থ এক আফগান আমলা বলেন যে, কাবুলে স্থিরবিশ্বাস যে, ঐ অঞ্চলে কোনো বিদ্রোহী ছিল না, অগ্নি বর্ষণ করা হয়েছিল পাকিস্তানী সামরিক ঘাঁটি থেকে. এই ধারণাই পোষণ করে আফগান সীমান্ত সৈনিকরা. তাদের একজন বলে যে, পাকিস্তানী পক্ষকে ন্যাটো জোটের অভিযানের প্রস্তুতির কথা জানানো হয়েছিল.