রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ অ্যাসেম্বলির মানব অধিকার সংক্রান্ত কমিটির সদস্যরা মঙ্গলবার এক সিদ্ধান্ত অনুমোদন করেছে কঠোর পদ্ধতির নিন্দে করে, যার সাহায্যে সিরিয়ার কর্তৃপক্ষ বিগত কয়েক মাস ধরে দেশে বিশৃঙ্খলা দমন করছে. ভোটদানের সময় ১২২ জন খসড়া সিদ্ধান্ত সমর্থন করেছে, ১৩ জন বিপক্ষে ভোট দিয়েছে, আর ৪১ জন ভোটদান থেকে বিরত থেকেছে. সিদ্ধান্তে “সিরিয়ার কর্তৃপক্ষের দ্বারা মানব অধিকারের নিয়মিত গুরুতর লঙ্ঘনের চূড়ান্ত নিন্দে করা হয়েছে”, এবং তাছাড়া প্রতিবাদকারী ও মানব অধিকার রক্ষকদের মৃত্যুদন্ড ও নির্যাতনের নিন্দে করা হয়েছে. নিজের তরফ থেকে রাষ্ট্রসঙ্ঘে সিরিয়ার প্রতিনিধি “গৃহযুদ্ধের শুরু প্ররোচিত করার” জন্য এ সিদ্ধান্ত গ্রহণের উদ্যোক্তা গ্রেট-বৃটেন, ফ্রান্স ও জার্মানির বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন. রাশিয়া সিরিয়া সম্পর্কে রাষ্ট্রসঙ্ঘের এ সিদ্ধান্ত সমর্থন করে নি. রাষ্ট্রসঙ্ঘে রাশিয়ার সহকারী স্থায়ী প্রতিনিধি সের্গেই কারেভ বলেন যে, মানব অধিকারের প্রশ্ন  কোনো রাষ্ট্রের আভ্যন্তরীন ব্যাপারে হস্তক্ষেপের অজুহাত হতে পারে না. কারেভ উল্লেখ করেন যে, মস্কো একেবারে একতরফা দলিল রাষ্ট্রসঙ্ঘে পেশ করার বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করে. সিরিয়ার প্রশ্ন মীমাংসায় আন্তর্জাতিক জনসমাজের প্রধান লক্ষ্য মস্কো দেখে হিংসা বন্ধ করায় এবং সঙ্ঘর্ষরত সমস্ত পক্ষের সংলাপে উত্তীর্ণ হওয়ায়. রাষ্ট্রসঙ্ঘের তথ্য অনুযায়ী, সিরিয়ায় বিশৃঙ্খলার আট মাসে নিহতদের সংখ্যা সাড়ে তিন হাজার জন ছাড়িয়ে গেছে.