মরক্কোর রাজধানী রাবাতে ১৬ই নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য আরব লীগের সদস্য দেশগুলির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সাক্ষাতে সিরিয়া অংশগ্রহণ করবে না. গত শনিবার আরব রাষ্ট্রগুলির লীগ এ সংস্থায় সিরিয়ার সদস্যপদ স্থগিত রেখেছে. বুধবার মরক্কোর রাজধানীতে আরব দেশগুলির মন্ত্রীরা আবার সিরিয়া সঙ্কট অতিক্রম করার পথ আলোচনা করবেন. আশা করা হচ্ছে যে, আঞ্চলিক নেতারা সিরিয়ার রাষ্ট্রপতি বাশার আসদের শাসন ব্যবস্থার আরও বিচ্ছিন্নতার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন, যিনি আট মাস ধরে সামরিক শক্তির সাহায্যে দেশে সরকারবিরোধী আন্দোলন দমন করার চেষ্টা করছেন. এদিকে, বিরোধীদের পক্ষে চলে আসা সৈনিকরা গত রাতে ডামাস্কাসের উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত বিমানবাহিনীর গোয়েন্দা বিভাগের ভবন আক্রমণ করে. স্থানীয় সময় রাত আড়াইটায় তারা ভারী মেসিনগান ও গ্রেনেড-থ্রোয়ার থেকে এ ভবনের উপর অগ্নিবর্ষণ করে. বিরোধীপক্ষের সাথে সিরিয়ার বাহিনীর সঙ্ঘর্ষে ব্যবহৃত হচ্ছে সামরিক হেলিকপ্টার, জানিয়েছে "রয়টার" সংবাদ সংস্থা প্রত্যক্ষদর্শীদের বিবৃতি উদ্ধৃত করে. এ সঙ্ঘর্ষে হতাহতদের সম্বন্ধে এখনও কোনো খবর নেই. ইডলিব প্রদেশ এবং হোমস শহরের মানব অধিকার রক্ষকদের তথ্য অনুযায়ী, মঙ্গলবার অন্ততপক্ষে ছয়জন নিহত হয়েছে. তার একদিন আগে সিরিয়ায় নিহত হয়েছে ৭০ জন, যার মধ্যে ৩০ জনের উপর – সিরিয়ার সামরিক কর্মী. এ অঞ্চলের একটি প্রভাবশালী দেশ – তুরস্ক আরব রাষ্ট্রগুলির লীগের সদস্য নয়, কিন্তু তার প্রতিনিধিরা রাবাতে আরব লীগের প্রতিনিধিদের সাথে সাক্ষাত্ করতে চান সিরিয়ার পরিস্থিতি আলোচনার জন্য. এর প্রাক্কালে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী রেজেপ তাইইপ এর্দোগান বলেন যে, সিরিয়ার বর্তমান কর্তৃপক্ষের প্রতি আস্থা হারিয়েছেন. রাশিয়া ও চীন সিরিয়ার সঙ্কটে বাইরের বলপ্রয়োগমূলক হস্তক্ষেপের বিরুদ্ধে মত প্রকাশ করছে লিবিয়ার চিত্রনাট্যের পুনরাবৃত্তির ভয়ে. একই সঙ্গে, মস্কো ও বেজিং সিরিয়ার কর্তৃপক্ষকে আহ্বান জানাচ্ছে সংস্কার শুরু করার এবং বিরোধীপক্ষের সাথে সংলাপ শুরু করার.