জাপানে ১১ই মার্চের ভীষণ ভূমিকম্পের ৮ মাস পরে ৩৬০০ জনেরও বেশি লোক নিখোঁজ রয়েছে. নিহতদের তালিকায় রয়েছে – ১৫হাজার ৮৩৬ জনের নাম. শেষ তথ্য অনুযায়ী, বিপর্যয়ে সম্পূর্ণ বা আংশিকভাবে ধ্বংস হয়েছে ৩ লক্ষ ১০ হাজার ভবন. বর্তমানে প্রায় সমস্ত পরিকল্পিত সাময়িক ভবনের নির্মাণ শেষ হয়েছে, লোকেদের অপসারণের কেন্দ্রগুলি বন্ধ করা হচ্ছে. ১১ই মার্চ জাপানের পূর্বাঞ্চলে ৯.০ মাত্রার ভীষণ ভূমিকম্প হয়েছিল. তারপরে আসে ধ্বংসাত্মক সুনামী ঝড়. এ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে শুধু বিপুল সংখ্যক লোকই মারা যায় নি, এর ফলে "ফুকুসিমা-১" পারমাণবিক বিদ্যুত্ কেন্দ্রে দুর্ঘটনাও ঘটে. তার দরুণ তেজষ্ক্রিয়তার নিষ্ক্রমণ হয় জলে এবং বাতাসে, এবং তার পরে বিপজ্জনক এ তেজষ্ক্রিয়তা আবিষ্কত হয়েছে খাদ্যদ্রব্যে. বিশেষজ্ঞদের পূর্বাভাষ অনুযায়ী, ক্ষতিগ্রস্ত বিদ্যুত্ কেন্দ্রের বিজোড়নের জন্য অন্ততপক্ষে ৩০ বছর লাগবে.