0রাশিয়া উদ্বিগ্ন যে, ইরান সম্পর্কে আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির নতুন রিপোর্ট ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতির তাড়াতাড়ি রাজনৈতিক-কূটনৈতিক মীমাংসার উদ্দেশ্যে আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টা ক্ষুণ্ণ করার জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে. এ সম্বন্ধে বলা হয়েছে আন্তর্জাতিক পারমাণবিক শক্তি এজেন্সির পরিচালকমন্ডলীর পরিষদে এজেন্সির ডিরেক্টর জেনারেল ইউকিয়া আমানোর রিপোর্ট পেশ করার পরে রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সরকারী বিবৃতিতে. রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, এজেন্সির কাছে বিশ্বাসযোগ্য তথ্য আছে যে, ইরান সামরিক পারমাণবিক কর্মসূচির কাঠামোতে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছে. মস্কোয় রিপোর্ট অধ্যয়ন করা শুরু হয়েছে. রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রথম মূল্যায়ন অনুযায়ী, এ রিপোর্টে মূলনীতিগত নতুন তথ্য নেই. মস্কোয় ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি সংক্রান্ত নতুন রিপোর্টে আগে জানা সব ঘটনাকে ইচ্ছাকৃতভাবে রাজনৈতিক সুর দিয়ে সংকলন করার চেষ্টা হিসেবে দেখা হচ্ছে. রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বলা হয়েছে, “এমন দৃষ্টিভঙ্গীকে পেশাদারী ও নিরপেক্ষ বলা কঠিন”. তা পরিস্থিতির রাজনৈতিক-কূটনৈতিক মীমাংসার প্রচেষ্টাকে ক্ষুণ্ণ করে এবং তা ঘটনা বিকাশকে মোকাবিলার ধারায় মোড় ঘোরাতে পারে. রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে বলা হয়েছে, “আমরা এতে তাছাড়া রাশিয়ার উদ্যোগের উপর আঘাত হানার চেষ্টাও দেখতে পাচ্ছি, যে উদ্যোগের উদ্দেশ্য হল – পর্যায়ানুক্রমিক ও পারস্পরিকতার ভিত্তিতে সমস্যার সমাধানে সাহায্য করা”. রাশিয়ার সবচেয়ে বেশি আগ্রহ জাগিয়েছে রিপোর্টের সত্যিকার নতুন উপাদান, যাতে এজেন্সির সাথে দেরি না করে প্রত্যক্ষ সংলাপ শুরু করায় তেহেরানের প্রস্তুতির প্রমাণ রয়েছে, তথাকথিত “অনুমিত গবেষণা” বিষয়ক সব প্রশ্ন স্পষ্ট করে নেওয়ার জন্য. বিবৃতিতে জোর দিয়ে বলা হয়েছে যে, গড়ে ওঠা পরিস্থিতিতে রাশিয়া চাপ ও মোকাবিলার নীতির গঠনমূলক বিকল্প গড়ে তোলার দৃষ্টিভঙ্গীকে এগিয়ে নিয়ে যাবে. রাজনৈতিক-কূটনৈতিক পদ্ধতিতে ইরান প্রশ্নের পরবর্তী মীমাংসার পক্ষে মত প্রকাশ করেছে চীন. সারা পৃথিবীর জন্য এবং নিকট প্রাচ্যের জন্য এ অঞ্চলে নতুন গোলযোগ এড়ানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ. ইরানের পারমাণবিক কর্মসূচি সম্পর্কে চীন নিজের স্থিতি বজায় রাখবে এবং এ প্রশ্নের মীমাংসায় সংলাপ ও সহযোগিতার আহ্বান জানাচ্ছে, এর প্রাক্কালে ঘোষণা করেছে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়.