আজ থাইল্যান্ডের পর্যটন পরিচালন দপ্তরের সূত্র ধরে চায়না ডেইলি সংবাদপত্র জানিয়েছে, যে বন্যার কারনে সে দেশের পর্যটনশিল্প ৮০ কোটি ডলার পর্যন্ত খোয়াতে পারে. পূর্বাভাস অনুযায়ী থাইল্যান্ডের পর্যটনশিল্পের জন্য অদূর ভবিষ্যতে দুটি সম্ভাব্য চিত্রনাট্য অপেক্ষা করে আছে. যদি নভেম্বর মাস শেষ হওয়ার আগেই সমস্যা মিটে যায়, তাহলে ক্ষতি হবে নূন্যতম, ৫২ কোটি ডলারের মতো. যদি দেশে বানভাসি পরিস্থিতি ডিসেম্বরের শেষ পর্যন্ত বজায় থাকে, তাহলে ক্ষতির পরিমান ৮২,৫ কোটি ডলার পর্যন্ত পৌঁছাবে. গত অর্দ্ধশতাব্দীর মধ্যে থাইল্যান্ডে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যা হয়েছে দীর্ঘকালীন অবিরত বৃষ্টিপাতের কারনে. সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে দেশের মধ্যাঞ্চল, যেখানে চাও প্রাইয়া নদীর পাড়ে ব্যাংকক ও আয়ুথায়া শহর অবস্থিত. অন্যদিকে স্বাস্থ্যোদ্ধার কেন্দ্র যেমন হুয়াহিন, পাট্টাইয়া, ফুকেত, যারা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়নি, তারা বাড়তি পর্যটকদের স্বাগত জানাতে প্রস্তুত.