শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার কাঠামোতে গঠিত হবে বিদ্যুত্ ও জ্বালানী ক্লাব. সাঙ্কত-পিতারবুর্গে সোমবার শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার অন্তর্ভুক্ত দেশগুলির প্রধানমন্ত্রীদের পরিষদের বৈঠকের প্রাক্কালে “ইন্টারফাক্স” সংবাদ সংস্থাকে এ সম্বন্ধে জানিয়েছেন রাশিয়ার সরকারের এক উত্স. তাঁর কথায়, এটি হল রাশিয়ার উদ্যোগ, এবং আশা করা হচ্ছে যে, ক্লাব কাজ করতে শুরু করবে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারীতে. সংবাদ সংস্থার সংলাপী ব্যাখ্যা করে বলেন যে, বিদ্যুত্শক্তির ক্ষেত্রে ব্যাপক পরিসরের পরিকাঠামোমূলক প্রকল্পের জন্য, যেমন তাজিকিস্তান থেকে আফগানিস্তান ও পাকিস্তান হয়ে ভারত অবধি হাই-ভোল্টেজ বিদ্যুত্ সরবরাহ লাইন নির্মাণের জন্য “গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক সমর্থন” প্রয়োজন. তিনি জোর দিয়ে বলেন, “যেহেতু সমস্ত রাষ্ট্র এতে আগ্রহী এবং সমর্থন করতে প্রস্তুত, তাই শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার বিন্যাসেই এ বিষয়টি আলোচনা করা যেতে পারে, যা দ্বিপাক্ষিক ভিত্তিতে মীমাংসা করা সম্ভব নয়”. শাংহাই সহযোগিতা সংস্থার দশম জয়ন্তী সাক্ষাতের অংশগ্রহণকারীরা আঞ্চলিক নিরাপত্তা, সন্ত্রাসবাদ, বিচ্ছিন্নতাবাদ ও সুসংবদ্ধ অপরাধপ্রবণতার প্রতিরোধ সম্বন্ধে আলোচনা করবেন. তাছাড়া, বহুপাক্ষিক বাণিজ্যিক-অর্থনৈতিক সহযোগিতা সুদৃঢ়করণ সংক্রান্ত একসারি প্রশ্নও আলোচিত হবে. পুতিন একসারি দ্বিপাক্ষিক আলাপ-আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন, বিশেষ করে চীনের রাষ্ট্রীয় পরিষদের প্রধানমন্ত্রী ভ্যান জিয়াবাও এবং পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইউসুফ গিলানীর সাথে. শাংহাই সহযোগিতা সংস্থায় অন্তর্ভুক্ত আছে রাশিয়া, কাজাখস্তান, চীন, কির্গিজিয়া, তাজিকিস্তান ও উজবেকিস্তান. পর্যবেক্ষকের স্থিতি পেয়েছে মঙ্গোলিয়া, ভারত, ইরান এবং পাকিস্তান.