রাশিয়া সেই স্থিতি থেকেই মত প্রকাশ করবে, যে স্থিতি থেকে বিগত তিন বছর ধরে মত প্রকাশ করে এসেছে. “জি-২০”-র সমস্ত দেশের সুসমন্বিত নীতি অনুসরণ করা উচিত্, যা বিশ্ব অর্থনীতিতে পরিস্থিতি স্থিতিশীল করতে পারে. পূর্বানুমানযোগ্য ও যুক্তিসঙ্গত কাজ করা উচিত্, অতিরিক্ত সংরক্ষণবাদ এড়ানো উচিত্, আভ্যন্তরীন চাহিদাকে প্রেরণা দেওয়া উচিত্, যাতে কারবারী সক্রিয়তা বজায় রাখা যায়. তাছাড়া, “ব্রিক্স” গ্রুপের অন্যান্য দেশের মতো রাশিয়াও আর্থিক স্থিতিশীলতার ব্যবস্থায় অংশগ্রহণ করতে প্রস্তুত. সর্বপ্রথমে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের মাধ্যমে, যেখানে রাশিয়া নিজের সঙ্গতি বিনিয়োগ করছে. তবে, যদি প্রয়োজন হয়, তাহলে ইউরোসঙ্ঘের সাথে অথবা ইউরোপীয় তহবিলের সাথে দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতাও সম্ভব. তাছাড়া রাশিয়ারও একসারি উদ্যোগ এবং প্রস্তাব আছে, যার একটি শেল্ফ অঞ্চলে তেল নিষ্কাশন অথবা তেল পরিবহণে জরুরী পরিস্থিতি দেখা দেওয়ার ক্ষেত্রে কি করা উচিত্, তার সাথে জড়িত. তাছাড়া, রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি কপিরাইট রক্ষা, সর্বপ্রথমে ইন্টারনেটে কপিরাইট রক্ষার জন্য নতুন বিধানিক বনিয়াদ গঠনের ধারণা উথ্থাপন করেছেন.