প্যালেস্টাইনী হামাস আন্দোলন ঘোষণা করেছে যে, ২০০৬ সালে আটক করা ইস্রাইলী কর্পোরাল গিলাদ শালিতের সাথে যোগ্য ব্যবহার করা হয়েছে. এ সম্বন্ধে জানিয়েছে ইস্রাইলের আর্মি রেডিও. হামাস আন্দোলনের প্রতিনিধিরা আশ্বাস দিয়েছে যে, শালিতের সাথে ব্যবহার করা হয়েছে ইস্লামিক নৈতির মূল্যবোধ সম্পূর্ণভাবে মেনে. সেইজন্য তাকে নির্যাতন করা হয় নি এবং সে জীবনের জন্য গুরুত্বপূর্ণ সমস্ত চাহিদা পুরণ করতে পেরেছে. এদিকে ইস্রাইলের কর্তৃপক্ষ কর্পোরাল গিলাদকে বিনিময়ের চুক্তির প্রথম পর্যায়ের পালন হিসেবে ১০২৭ জন প্যালেস্টাইনী বন্দীকে মুক্ত করার জন্য প্রস্তুত হচ্ছে. ৪৩০ জন বন্দীর একটি দলকে জেলখানা থেকে নেগেভ মরুভূমিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে. সেখান থেকে তাদের প্যালেস্টাইনী ভূবাগে পাঠানোর পরিকল্পনা আছে. তাছাড়া, তেল আভিভে ঘোষণা করা হয়েছে যে, আরও ৪৭ জনকে মুক্ত করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে, যাদের রাখা হয়েছে ইস্রাইলের কেন্দ্রাঞ্চলের জেলখানায়. আশা করা হচ্ছে যে, ১৮ই অক্টোবর প্যালেস্টাইনী হামাস আন্দোলন শালিত-কে মুক্ত করবে. নিজের তরফ থেকে ইস্রাইল প্রথম পর্যায়ে ৪৭৭ জন প্যালেস্টাইনীকে মুক্ত করবে. বাকি বন্দীদের ইস্রাইলীরা মুক্ত করবে পরে. ইস্রাইলের সর্বোচ্চ আদালত সোমবার সেই সব নাগরিকদের নালিশ বিবেচনা শুরু করেছে, যারা শালিতের মুক্তি সংক্রান্ত চুক্তি বাতিলের জন্য চেষ্টা করছে. সন্ত্রাসের ফলে নিহতদের পরিবারগুলি তিনটি আবেদন দায়ের করেছে. তাদের ভয় যে, মুক্ত করা বিপজ্জনক বন্দীরা ইস্রাইলের ভূভাগে নতুন নতুন সন্ত্রাস প্ররোচিত করতে পারে. ইস্রাইলী প্রচার মাধ্যম জোর দিয়ে লিখছে যে, আদালত খুব সম্ভবত এ সব আবেদন নাকচ করবে.