‘ওয়াল-স্ট্রীট দখল করো’ নামক আন্দোলন সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে. ধনকুবের, যাদের বিরূদ্ধে আর্থিক সংকট সৃস্টি করার প্রতিবাদে নিউ-ইয়র্কে  আন্দোলন চলছে, তা লন্ডন, রোম ও বার্লিন পর্যন্ত গিয়ে পৌঁছেছে. আর তারপরে সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে. ৮০টিরও বেশি দেশ এই সংক্রামণে আক্রান্ত হয়েছে. নিজেদের কার্যকলাপের সমন্বয় করার জন্য সক্রিয় আন্দোলনকারীরা নিজেদের ইন্টারনেট সাইট তৈরি করেছে. জার্মানীতে মিউনিখ, ফ্রাঙ্কফুর্ট, হ্যানহোভার ও বার্লিনে মিছিল হয়েছে. রেইখস্টাগের সামনে হাজারে হাজারে মানুষ জড়ো হয়েছিল. সমাবেশ ছত্রভঙ্গ করার জন্য পুলিশ কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে. লন্ডনে মিছিলে উইকিলিক্সের স্রস্ঠা জুলিয়ান আসান্জ যৌগ দেন. তিনি ব্যাঙ্কারদের এবং রাজনীতিবিদদের দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত করে বক্তৃতা দিয়েছেন. মিছিলকারীরা সেই সময়ে স্টক-এক্সচেঞ্জ দখল করার চেষ্টা করে. পুলিশ কোনোমতে তাদের রুখেছে. রোমে হাজার হাজার মিছিলকারী ১ শতাংশ ধনীর দুর্নীতি আর লোভের বিরূদ্ধে বিশাল গণমিছিলে সমবেত হয়েছিল, ১৩৫ জন আহত হয়েছে. সভা-সমাবেশ অস্ট্রেলিয়া, ক্যানাডা ও লাতিন আমেরিকাথেও চলছে. নিউ-ইয়র্কের আন্দোলনকারীদের জাপান সহ কিছু এশীয় দেশও সংহতি জানিয়েছে.