লিবিয়ার প্রাক্তণ রাষ্ট্রপ্রধান গদ্দাফির অন্যতম পুত্র, হামিস অন্তর্বর্তীকালীন জাতীয় পরিষদের সাথে সংঘর্ষে সত্যিই মারা গেছে. এই খবর দিয়েছে আজ  ‘আররাই’ দূরদর্শন চ্যানেল, যারা লিবিয়ার ভূতপূর্ব নেতৃবৃন্দের সাথে যোগাযোগ রাখে. দূরদর্শন চ্যানেলটির ভাষ্য অনুযায়ী, হামিস অগাস্টের শেষদিকে ত্রিপোলির ৯০ কিলোমিটার দূরত্বে সংঘর্ষে নিহত হন. ‘আররাই’ সেইসঙ্গেই প্রাক্তণ গুপ্তচর বাহিনীর প্রধান আবদুল্লা আস-সেনুসির নিহত হওয়ার খবরও দিয়েছে. অন্তর্বর্তীকালীন জাতীয় পরিষদ ইতিপূর্বে একাধিকবার হামিস গদ্দাফির মৃত্যুর কথা ঘোষণা করেছিল, যে লিবিয়ার সেনাবাহিনীর অভিজাত ব্রিগেডের প্রধান ছিল. কিন্তু মুয়াম্মার গদ্দাফির অনুগামীরা তার সত্যতা অস্বীকার করছিল.